৩০ গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় ভরসা জহিরন বেওয়া

০২:৪৮:১২ বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯

সর্বশেষ সংবাদ :

     • ৯৫৯ পরীক্ষার্থীর খাতায় প্রশ্নের উত্তর এমনকি ভুলগুলোও হুবহু একই!     • যে কারণে ক্যাটরিনার ওপর ক্ষুব্ধ সালমান খান     • একটি মেয়ের কারণে আজ দুই বন্ধু অকালে প্রাণ হারিয়ে এখন কবরবাসী: নয়ন বন্ডের মা     • সালাউদ্দিনকে বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচ করার দাবি!     • ১৮ বছর বয়সেই আইপিএলে কেকেআরের মালিক এই কন্যা!     • পবিত্র হজ পালন করতে গিয়ে আরো তিন বাংলাদেশী হজযাত্রী মারা গেছেন     • হত্যাকারীর কল লিস্টে মিন্নির ফোন নম্বর!     • নৃত্য করা থেকে কাপড় কাচানো সবকিছু সৈনিকদের দিয়ে করাচ্ছে সেনা অফিসারদের স্ত্রীরা!     • অবশেষে ৫৩ লাখ টাকা চুরি করা চোরকে খুঁজে পেলেন অনন্ত জলিল     • মিন্নির পক্ষে লড়ার জন্য কোনো আইনজীবী্ রাজি হচ্ছেন না

শনিবার, ২১ এপ্রিল, ২০১৮, ০৩:৩২:০০

৩০ গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় ভরসা জহিরন বেওয়া

৩০ গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় ভরসা জহিরন বেওয়া

লালমনিরহাট থেকে : ৩০ গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় ভরসা জহিরন বেওয়া। দীর্ঘ ৪৪ বছর ধরে বাইসাইকেল চালিয়ে গ্রামের অসহায় মানুষের স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে আসছেন এক নারী। বয়স তার ৯৫। কিন্তু উদ্যম, সাহস, কর্ম দক্ষতা একটুও কমেনি। লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার ভেলাবাড়ী ইউনিয়নের ভারত সীমান্ত ঘেঁষা তালুক দুলালী  গ্রামের  জহিরন বেওয়া।

এ বয়সে বাড়ীর বারান্দায় কিংবা কোন গাছের ছায়ায় বসে নাতি-নাতনিদের রূপকথার গল্প শোনানো অথবা তাদের উচ্ছল খেলাধুলা দেখে সময় কাটানোর কথা।

কিন্তু তা না করেই প্রতিদিন ছুটে বেড়াচ্ছেন গ্রামের পর গ্রাম মাইলের পর মাইল। কারো অসুস্থতার সংবাদ পেলেই নাওয়া-খাওয়া ভুলে বাইসাইকেলে চড়ে ছুটে যান সেই রোগীর বাড়িতে চিকিৎসা সেবা দিতে।তালুক দুলালী গ্রামের মৃত সায়েদ আলীর স্ত্রী জহিরন বেওয়া।

স্বামী মারা যান ১৯৬৮ সালে। এরপর  শারীরিক ও মানুষিকভাবে ভেঙে পড়েন তিনি। তিন ছেলে আর দুই মেয়েকে নিয়ে তার সংসার। আট বছর আগে বড় ছেলে দানেশ আলী ৬৮ বছর বয়সে মারা যান। ছোট ছেলে তোরাব আলীর বয়স ৫৯।

সংসারে এই সংগ্রামী নারী এখনো সচল, সজাগ আর কর্মউদ্যমী হয়ে বেঁচে আছেন।সমাজের প্রচলিত রীতিনীতি ভেঙে ১৯৭৩ সালে জহিরন পরিবার পরিকল্পনার অধীনে স্বাস্থ্যসেবা ও পরিবার পরিকল্পনা বিষয়ে ছয় মাসের প্রশিক্ষণ নিয়েছেন।

পরে চুক্তিভিত্তিক মাসিক মজুরিতে কাজে যোগ দেন।নিজ গ্রামসহ আশ-পাশের গ্রামগুলোতে সাইকেল চালিয়ে গ্রামবাসীদের স্বাস্থ্যসেবা দিতেন। ২শ থেকে ৩শ অবশেষে ৫শ টাকা মাসিক মজুরি পেয়ে ১০ বছর চাকরি করে অবসরে যান জহিরন।

চাকরি বাদ দিলেও অর্জিত অভিজ্ঞতা বাদ দেননি তিনি। তাই বাড়িতে বসে না থেকে আবারো গ্রামবাসীর স্বাস্থ্যসেবায় মনোযোগী হয়ে উঠেন জহিরন।  খনো কাজ করছেন হাসি মুখে। গ্রামের লোকজনের কাছে তার বেশ সুনাম রয়েছে। কেউবা জহিরন দাদি, কেউবা নানি আবার কেউবা জহিরন আপা বলে সম্বোধন করেন তাকে।

ভেলাবাড়ী গ্রামের স্কুলশিক্ষিকা  রাবেয়া  সুলতানা জানালেন, গেলো ৪৪ বছর ধরে জহিরন বেওয়াকে দেখছি বাই সাইকেল চালিয়ে গ্রামের পর  গ্রাম মাইলের পর মাইল ঘুরে ঘুরে গ্রামের অসহায় মানুষগুলোকে স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে আসছেন।জহিরন  বলেন, আমি শুধু সাধারণ রোগ যেমন-জ্বর, মাথা ব্যথা, বমি শারীরিক দুর্বলতাসহ রোগের চিকিৎসা দিয়ে থাকি।

এর জন্য আমাকে কোন টাকা দিতে হয় না। তবে আমি বাজারমূল্যে তাদের কাছে ওষুধ বিক্রি করি। এতে প্রতিদিন গড়ে দেড়শ’ টাকা আয় হয়।তিনি বলেন, আদিতমারী উপজেলার ৩০টি গ্রামে দু’ হাজারের বেশি পরিবারের সঙ্গে রয়েছে আমার নিবিড় যোগাযোগ। আমি প্রতিদিন সাইকেল চালিয়ে কমপক্ষে ৭টি গ্রামে ৭০টি বাড়িতে যাই। তাদের খোঁজখবর নিই।

তার দাবি, গেলো ৫০ বছরে তিনি কোন রোগে আক্রান্ত হননি।সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টি নারীর প্রতি অবিচার রোধ, শিক্ষা আর পছন্দানুযায়ী পেশা নির্বাচনের সুযোগ নিয়েও কাজ করছেন তিনি।

এমটিনিউজ২৪/এম.জে/ এস



খেলাধুলার সকল খবর »

ইসলাম


সূর্যগ্রহণ ও চন্দ্রগ্রহণের সময় মহানবী (সা.) যা করতেন

সূর্যগ্রহণ-ও-চন্দ্রগ্রহণের-সময়-মহানবী-সা-যা-করতেন

দীর্ঘ ৫০ বছর ধরে ‘আল্লাহ’ লেখা কাগজ সংরক্ষণই করছেন এই বৃদ্ধ

দীর্ঘ-৫০-বছর-ধরে-‘আল্লাহ’-লেখা-কাগজ-সংরক্ষণই-করছেন-এই-বৃদ্ধ

মুসলমানরাই সবচেয়ে বেশি সুখী মানুষ: মনোবিজ্ঞানীদের গবেষণা

মুসলমানরাই-সবচেয়ে-বেশি-সুখী-মানুষ-মনোবিজ্ঞানীদের-গবেষণা ইসলাম সকল খবর »

এক্সক্লুসিভ নিউজ


ফেসবুকে ঝড় তুলছে হবিগঞ্জের শিক্ষিত গরু!

ফেসবুকে-ঝড়-তুলছে-হবিগঞ্জের-শিক্ষিত-গরু-

একনাগাড়ে হাঁচি, ব্যবহার করুন ঘরোয়া এই টোটকা

একনাগাড়ে-হাঁচি-ব্যবহার-করুন-ঘরোয়া-এই-টোটকা

মাত্র ২০ বছর বয়সেই এই ছেলের আয় বছরে ২০ কোটি! জানেন কীভাবে?

মাত্র-২০-বছর-বয়সেই-এই-ছেলের-আয়-বছরে-২০-কোটি--জানেন-কীভাবে- এক্সক্লুসিভ সকল খবর »

সর্বাধিক পঠিত


যে ৬ কারণে রংপুরের পল্লীনিবাসেই এরশাদকে দাফনের সিদ্ধান্ত

শেষ বলের আগে আমি মুশফিককে মনে করেছিলাম: স্টোকস

আইসিসির ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিং প্রকাশ, জেনে নিন দলগুলোর অবস্থান

শ্রীলঙ্কা সফরে মাশরাফির নেতৃত্বে ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা বিসিবির

পাঠকই লেখক


স্ত্রীর তালাকের নোটিশ পেয়ে খুশিতে দুধ দিয়ে গোসল করলেন এক স্বামী!

স্ত্রীর-তালাকের-নোটিশ-পেয়ে-খুশিতে-দুধ-দিয়ে-গোসল-করলেন-এক-স্বামী-

কলাগাছের ভেলায় চড়ে বিয়ে করতে কনের বাড়িতে এলেন বর

কলাগাছের-ভেলায়-চড়ে-বিয়ে-করতে-কনের-বাড়িতে-এলেন-বর

এক প্যাকেট আঙুর, দাম ১১ লাখ টাকা!

এক-প্যাকেট-আঙুর-দাম-১১-লাখ-টাকা- পাঠকই সকল খবর »

জেলার খবর


ঢাকা ফরিদপুর
গাজীপুর গোপালগঞ্জ
জামালপুর কিশোরগঞ্জ
মাদারীপুর মানিকগঞ্জ
মুন্সিগঞ্জ ময়মনসিংহ
নারায়ণগঞ্জ নরসিংদী
নেত্রকোনা রাজবাড়ী
শরীয়তপুর শেরপুর
টাঙ্গাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া
কুমিল্লা চাঁদপুর
লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী
ফেনী চট্টগ্রাম
খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি
বান্দরবান কক্সবাজার
বরগুনা বরিশাল
ভোলা ঝালকাঠি
পটুয়াখালী পিরোজপুর
বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গা
যশোর ঝিনাইদহ
খুলনা মেহেরপুর
নড়াইল নওগাঁ
নাটোর গাইবান্ধা
রংপুর সিলেট
মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ
নীলফামারী দিনাজপুর
কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট
পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ
সুনামগঞ্জ কুষ্টিয়া
মাগুরা সাতক্ষীরা
বগুড়া জয়পুরহাট
চাঁপাই নবাবগঞ্জ পাবনা
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ