১০:০৭:৫৯ শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯

সর্বশেষ সংবাদ :

     • নখের খোঁচায় উঠে যাচ্ছে রাস্তার পিচ     • পদত্যাগ করছেন নরেন্দ্র মোদি! কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠক আহ্বান     • ধর্ষকের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের দৃশ্য টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার!     • রশিদ-নবীর ওপর তাণ্ডব চালিয়ে সেঞ্চুরি করলেন বাবর আজম!     • বাঙালি নারী পুরুষের সাথে প্রতিযোগিতা করে পুরুষের ঘাড়ে বসেই     • একেবারে হেসে খেলেই ডাচদের হারালো বাংলাদেশ!     • প্রাথমিকের প্রশ্নপত্র ফাঁস, ব্যাংক কর্মকর্তাসহ ২৯ জন আটক     • প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় নকল দিতে গিয়ে পুলিশ কর্মকর্তা ধরা     • কোচিং সেন্টারে ভয়াবহ আগুন, নিহত ১৯ শিক্ষার্থী     • মদ-নারী-ব্যাভিচার সব অপকর্মই চলে সৌদি রাজপরিবারে: রাজ-পুত্রবধূ

সোমবার, ০১ এপ্রিল, ২০১৯, ০৯:০৫:১০

ভ্যান চালিয়েই দেশসেরা কলেজে পড়েন শাহীন

ভ্যান চালিয়েই দেশসেরা কলেজে পড়েন শাহীন

নিউজ ডেস্ক : বাবা মারা গেছেন চার বছর বয়সে। দাদা ও নানার বাড়ির সব সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত। অসহায় মা গরু, ছাগল, হাঁস, মুরগি পালন ও মানুষের বাসায় কাজ করে বড় করেছেন তার দুই সন্তানকে। ছোট থেকেই মায়ের এসব কষ্ট দেখে সংসারের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেন রাজশাহী কলেজে অনার্সে পড়া ছাত্র শাহীন আলম। এখন ভ্যান চালিয়েই দেশসেরা কলেজে পড়ছেন শাহীন। রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার বেলপুকুরিয়া থানার ছত্রগাছা গ্রামের মৃত কামাল হোসেনের ছেলে শাহীন।

তৃতীয় শ্রেণি থেকে ক্লাস নাইন পর্যন্ত প্রতিটি ক্লাসে প্রথম হয়েছেন। টাকার অভাবে ভালোভাবে প্রাইভেট পড়ার সুযোগ হয়নি। ক্লাস নাইনে থাকতে স্কুলের ড্রেস না পরে আসায় এক শিক্ষক বলেছিলেন ড্রেস কেনার টাকা নেই তো পড়াশোনা করার কি দরকার? ছোট থেকেই গ্রামে মানুষের জমিতে ধান লাগানো, ধান কাটা, পিয়াজ লাগানো, রসুন লাগানোসহ বিভিন্ন কৃষিকাজ করে পরিবার ও পড়াশোনা চালিয়েছে শাহীন। কয়েক বছর থেকে জমির মালিকরা কৃষি জমি কেটে পুকুর খনন করায় কাজ কমে গেছে। তাই কাজের অভাবে চালাচ্ছেন ভ্যানগাড়ি। ছয় বছর আগে ড্রাগ কোম্পানি দরিদ্রতার কারণে শাহীন আলমের পরিবারকে একটি গরুর বাছুর দিয়েছিল।

সেই বাছুর পালন করে বড় করে বিক্রি করে ৪০ হাজার টাকায়। পরিবারের জমানো টাকা বলতে এটাই। এর মাঝে কয়েক হাজার টাকা দিয়ে কেনেন একটি ভ্যানগাড়ি। বানেশ্বর, পুঠিয়া, শিবপুরসহ পুঠিয়া উপজেলার বিভিন্ন স্থানে নিজেই ভাড়ায় চালান। শত বাধা পেরিয়ে এসএসসি পরীক্ষায় ৪.৪৪ এবং ইন্টারমিডিয়েট শেষ করে ৪.৪০ রেজাল্ট নিয়ে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রস্তুতি নিতে থাকে শাহীন। কিন্তু পরিবার আর নিজের সঙ্গে পেরে উঠলেন না। 

কোচিং কর্তৃপক্ষের কাছে পরিবারের করুণ বিষয়ে জানালে কোচিং কর্তৃপক্ষ কিছু টাকা ছাড় দেয়। ফলে কিছু দিন কোচিং করার সৌভাগ্য হয়। কিন্তু পরিবার চালাতে অসুস্থ মায়ের ওষুধ কিনতে কোচিং ছাড়তে বাধ্য হতে হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ে সুযোগ না পেলেও দেশসেরা রাজশাহী কলেজে সুযোগ হয় তার। 

ভূগোলে পড়ার ইচ্ছা থাকলেও ব্যবহারিক ক্লাস বেশি থাকায় ভর্তি হন ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতিতে। অনার্স প্রথম বর্ষ থেকে ভোরে ঘুম থেকে উঠে ভ্যান নিয়ে বেরিয়ে পড়ে শাহীন। হাটের দিনগুলোতে ভাড়া বেশি হয় তার। শাহীনের ছত্রগাছা হাইস্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম জানান, ‘ছেলেটির বাবা ছোটকালেই মারা গেছে।

সে আমার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী ছিল। ছোট থেকেই খুব মেধাবী ছিল। প্রতিটি ক্লাসে সে প্রথম থাকত। ছোটবেলায় দেখতাম মানুষের জমিতে কাজ করে পড়াশোনা ও পরিবার চালাত। এখন মা ও ছোট ভাইসহ পরিবারের তিনজনের সব কিছু তার কর্মেই চলছে।’ রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ হবিবুর রহমান মেধাবী শাহীনকে আর্থিক সহায়তা ও বৃত্তির ব্যবস্থা করে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। সমাজের বিত্তবানদের সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।
সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন



খেলাধুলার সকল খবর »

ইসলাম


ইসলাম সকল খবর »

এক্সক্লুসিভ নিউজ


স্মার্ট ফোনের দৌলতে গড়গড়িয়ে ১০৬ ভাষা পড়া, লেখা! বিস্ময় বালকের কীর্তিতে অবাক নেটদুনিয়া

স্মার্ট-ফোনের-দৌলতে-গড়গড়িয়ে-১০৬-ভাষা-পড়া-লেখা--বিস্ময়-বালকের-কীর্তিতে-অবাক-নেটদুনিয়া

একসঙ্গে চার মেয়ে ও দুই ছেলে শিশুর জন্ম দিলেন এক মা!

একসঙ্গে-চার-মেয়ে-ও-দুই-ছেলে-শিশুর-জন্ম-দিলেন-এক-মা-

১ ফুট লম্বা আম!

১-ফুট-লম্বা-আম- এক্সক্লুসিভ সকল খবর »

সর্বাধিক পঠিত


মেয়েকে বলেছি, সব জমি তোর আমাকে শুধু দু’মুঠো খাবার দিস

অবশেষে ক্যাটরিনাকেই বিয়ে করলেন সালমান!

বোলারদের র‍্যাংকিংয়ে সেরা দশের তালিকা প্রকাশ

আইসিসি ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ে সেরা দশ ব্যাটসম্যানের তালিকা প্রকাশ

পাঠকই লেখক


সাড়ে ১০ কেজি ওজনের বিশাল এক চিংড়ি!

সাড়ে-১০-কেজি-ওজনের-বিশাল-এক-চিংড়ি-

পড়াশোনায় ফাঁকিবাজ মেয়েকে শায়েস্তা করতে প্রশিক্ষিত কুকুর!

পড়াশোনায়-ফাঁকিবাজ-মেয়েকে-শায়েস্তা-করতে-প্রশিক্ষিত-কুকুর-

ফিরে এসেছে লাখ বছর পূর্বে বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া পাখি

ফিরে-এসেছে-লাখ-বছর-পূর্বে-বিলুপ্ত-হয়ে-যাওয়া-পাখি পাঠকই সকল খবর »

জেলার খবর


ঢাকা ফরিদপুর
গাজীপুর গোপালগঞ্জ
জামালপুর কিশোরগঞ্জ
মাদারীপুর মানিকগঞ্জ
মুন্সিগঞ্জ ময়মনসিংহ
নারায়ণগঞ্জ নরসিংদী
নেত্রকোনা রাজবাড়ী
শরীয়তপুর শেরপুর
টাঙ্গাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া
কুমিল্লা চাঁদপুর
লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী
ফেনী চট্টগ্রাম
খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি
বান্দরবান কক্সবাজার
বরগুনা বরিশাল
ভোলা ঝালকাঠি
পটুয়াখালী পিরোজপুর
বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গা
যশোর ঝিনাইদহ
খুলনা মেহেরপুর
নড়াইল নওগাঁ
নাটোর গাইবান্ধা
রংপুর সিলেট
মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ
নীলফামারী দিনাজপুর
কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট
পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ
সুনামগঞ্জ কুষ্টিয়া
মাগুরা সাতক্ষীরা
বগুড়া জয়পুরহাট
চাঁপাই নবাবগঞ্জ পাবনা
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ