০৭:১৬:৪৫ রবিবার, ২৬ মে ২০১৯

সর্বশেষ সংবাদ :

     • ব্রেকিং নিউজ: সৌদির বিমানবন্দরে হামলা     • বাংলাদেশ-পাকিস্তান আজকের ম্যাচের ব্যাপারে আইসিসি থেকে এইমাত্র যে সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হলো     • বৃষ্টির কারণে ৮:০২ মিনিটে শুরু হবে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের ম্যাচ     • ক্ষমতা আমার কাছে ভোগের বস্তু নয়: প্রধানমন্ত্রী     • ভারতে নির্বাচিত ২৩৩ জন এমপি ধর্ষণসহ বিভিন্ন অপরাধ মামলার আসামি!     • সামর্থ্যহীন শিশুদের হাতে বিনামূল্যে পোশাকসহ নানান সামগ্রী দিচ্ছেন তানজিল নামের এক ব্যবসায়ী     • বাংলাদেশ-পাকিস্তান ম্যাচ ২০ ওভারের!     • নারীরা জিন্স, শার্ট পরলে সন্তান হতে পারে হিজড়া!     • বৃষ্টির হানায় বন্ধ বাংলাদেশের ম্যাচ     • প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইফতারের দাওয়াত দিতে যাচ্ছে বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল

বুধবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯, ০৮:০১:৫৯

৪৪ বছর পর স্বজনদের খোঁজে ময়মনসিংহে ডেনমার্কের নারী

৪৪ বছর পর স্বজনদের খোঁজে ময়মনসিংহে ডেনমার্কের নারী

ময়মনসিংহ : ৪৪ বছর পর স্বজনদের খোঁজে বাংলাদেশের ময়মনসিংহে এসে ব্যর্থ মনোরথে ফিরে গেছেন ডেনমার্কের নাগরিক ক্যারোলিন লরিটসেন (৪৭)। দশ দিন বাংলাদেশে অবস্থানকালে নিজের বংশ পরিচয় জানতে ৩১ জানুয়ারি ময়মনসিংহে আসেন এবং ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার বাসুটিয়া গ্রাম ঘুরে সোমবার ডেনমার্কে ফিরে যান। এই দেশে জন্মেছেন বলে নিজের নামের সাথে ‘আমেনা’ যুক্ত করে নাম রেখেছেন ‘ক্যারোলিন আমেনা লরিটসেন’।

শুক্রবার রাতে ময়মনসিংহ প্রেসক্লাবে আসেন ক্যারোলিন। উপস্থিত সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি গল্পের মতো তার জীবনকাহিনী বর্ণনা করেন।

তিনি জানান, ১৯৭২ সালে তার জন্ম বাংলাদেশে। বয়স যখন দুই বা তিন বছর তখন ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ‘আমেনা’ নামে তাকে ভর্তি করা হয়। কিন্তু সুস্থ্য হলেও কেউ তাকে নিতে আসেনি। এরপর তাকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গাজীপুরের একটি শিশু পল্লীতে পাঠান।

মুক্তিযুদ্ধের পর স্বাধীন বাংলাদেশে বন্যা ও দুর্ভিক্ষের ঘটনাবলি ড্যানিশ মিডিয়াতে ব্যাপকভাবে প্রচারিত হলে ডেনমার্কের লরিটসন দম্পতি তাকে দত্তক গ্রহণে উৎসাহিত হন। ১৯৭৫ সালের ১৩ নভেম্বর শিশু পল্লী থেকে আমেনাকে দত্তক নেন ডেনমার্কের ওই দম্পতি।

ক্যারোলিন ডেনমার্কেই বড় হয়েছেন। সে ডেনমার্কে দত্তক গৃহীত প্রথম বাংলাদেশি শিশুদের মধ্যে অন্যতম। ক্যারোলিনের দত্তক বাবা-মা মারা গেছেন। ১৭ বছর আগে মা এবং কয়েক বছর আগে বাবা ক্যান্সারে মারা গেছেন। সে এখন মানবাধিকারকর্মী। ডেনিশ দ্বীপপুঞ্জের একটি ছোট্ট শহর ও দ্বীপের মধ্যে তার শৈশব কাটিয়েছেন।

ফেইই নামে সাত বছর বয়সী তার একটা মেয়ে আছে। তবু প্রায়শই স্বজনদের অভাববোধ করেন। তার ধারণা, তার বাবা-মা কেউ হয়তো বেঁচে নেই। তাই তাদের খোঁজ নেবার তেমন কোনো আগ্রহ জাগেনি। 

তবে স্বজনদের সন্ধান করতে ক্যারোলিন একটি ডিএনএ নমুনা কিট সংগ্রহ করেন এবং তার জিন কোডটি তিনটি ওয়েবসাইটে আপলোড করেন।

গত আগস্ট মাসে আমার তৃতীয় কাজিন হিসেবে ডিএনএ মিলে যায় কানাডা প্রবাসী এক বাংলাদেশী রবিউল বাসার উজ্জ্বলের সাথে। তাকে ই-মেইল করলে সে জানায় তার পৈতৃক নিবাস ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার বাসুটিয়া গ্রামে। সেই সূত্র ধরেই তিনি শুক্রবার ময়মনসিংহে আসেন।

ক্যারোলিন আমেন লরিটসেন বলেন, ’আমার কাগজপত্রগুলিতে বলা হয়েছে যে ময়মনসিংহের একটি হাসপাতালে আমি যখন দুই বছর বয়সে ছিলাম, তখন কেউ আমার খোঁজে আসেনি। যে কারণে আমাকে টেরে দেস হোমসের আশ্রয়স্থলে পাঠানো হয়েছিল।’ তিনি জানান, ২০১৪ সালের অক্টোবরে ময়মনসিংহের ৭৮ বছর বয়সী আকতার জাহান রহমানের সাথে ক্যারোলিনের সাথে মেলামেশা হয়েছিল। আক্তার জাহান রহমান এখন অস্ট্রেলিয়ায় রয়েছেন। তিনি আমাকে স্বজনদের জন্য আগ্রহী করে তুলেন।

ক্যারোলিন বলেন, ’আমি ভাবতাম এমন একজনকে যদি পাই, যিনি তার সন্তানকে ওই সময় হারিয়েছেন বা ময়মনসিংহে হাসপাতালে খুঁজে পাননি। আমিও আমার বাবা-মা বা আমার পরিবারকে জানতে চাই, এবং জানতে চাই কোথায় আমার জন্ম।’ তবে এবার সন্ধান না পেলেও তিনি আশাবাদী। বংশ পরিচয় খোঁজার ফলে তার ভাইবোন ও স্বজনদের খোঁজে পাওয়ার স্বপ্ন পূরণ হবে।

ক্যারোলিন বলেন, ’যদি আমার বাবা-মা খুব ভালো থাকেন তাতে মোটেই আবেগী হবো না। আমি শুধু তাদেরকে একনজর দেখতে চাই। আর যদি তারা খারাপ অবস্থায় থাকে তবে আমার দুঃখবোধ বাড়বে।’

ময়মনসিংহে রবিউল বাসার উজ্জ্বলের ছোট ভাই কাওসার তাকে সঙ্গ দেন। ক্যারোলিনকে ময়মনসিংহ শহর দেখান। জেলা প্রশাসক ড. সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাসের সাথেও দেখা করান। জেলা প্রশাসকের পরামর্শে তিনি ক্যারোলিনকে নিয়ে ময়মনসিংহ প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের নিকট নিজের জীবনকাহিনী তুলে ধরেন। গ্রামের বাড়ি বেড়াতো নিয়ে যান।

কাওসার জানান, ক্যারোলিনের স্বজনদের খোঁজে পেতে সব ধরণের চেষ্টা করছেন তারা। তারা আশাবাদি ক্যারোলিনের স্বজনদের তারা খোঁজে পাবেন।



খেলাধুলার সকল খবর »

ইসলাম


হজরত মুহাম্মদ সা: নিজ হাতে নির্মাণ করেন এ মসজিদ

হজরত-মুহাম্মদ-সা-নিজ-হাতে-নির্মাণ-করেন-এ-মসজিদ

১০ যুক্তি দিয়ে মুফতি দিলাওয়ার হোসাইন প্রমাণ করলেন তারাবি ২০ রাকাত

১০-যুক্তি-দিয়ে-মুফতি-দিলাওয়ার-হোসাইন-প্রমাণ-করলেন-তারাবি-২০-রাকাত

মুসলিম ইতিহাসের প্রথম সশস্ত্র যুদ্ধ বদর

মুসলিম-ইতিহাসের-প্রথম-সশস্ত্র-যুদ্ধ-বদর ইসলাম সকল খবর »

এক্সক্লুসিভ নিউজ


নারীরা জিন্স, শার্ট পরলে সন্তান হতে পারে হিজড়া!

নারীরা-জিন্স-শার্ট-পরলে-সন্তান-হতে-পারে-হিজড়া-

বাংলাদেশি বিজ্ঞানীর সাফল্য: এক ওষুধেই বহু ভাইরাস দমন!

বাংলাদেশি-বিজ্ঞানীর-সাফল্য-এক-ওষুধেই-বহু-ভাইরাস-দমন-

স্মার্ট ফোনের দৌলতে গড়গড়িয়ে ১০৬ ভাষা পড়া, লেখা! বিস্ময় বালকের কীর্তিতে অবাক নেটদুনিয়া

স্মার্ট-ফোনের-দৌলতে-গড়গড়িয়ে-১০৬-ভাষা-পড়া-লেখা--বিস্ময়-বালকের-কীর্তিতে-অবাক-নেটদুনিয়া এক্সক্লুসিভ সকল খবর »

সর্বাধিক পঠিত


একেবারে হেসে খেলেই ডাচদের হারালো বাংলাদেশ!

এ যেন আরেক বঙ্গবন্ধু! আরুক মুন্সীকে দেখতে মানুষের ভিড়

রাগান্বিত হয়ে যান রশিদ, জিদ করেই ঘুষি মারেন

কোচিং সেন্টারে ভয়াবহ আগুন, নিহত ১৯ শিক্ষার্থী

পাঠকই লেখক


সাড়ে ১০ কেজি ওজনের বিশাল এক চিংড়ি!

সাড়ে-১০-কেজি-ওজনের-বিশাল-এক-চিংড়ি-

পড়াশোনায় ফাঁকিবাজ মেয়েকে শায়েস্তা করতে প্রশিক্ষিত কুকুর!

পড়াশোনায়-ফাঁকিবাজ-মেয়েকে-শায়েস্তা-করতে-প্রশিক্ষিত-কুকুর-

ফিরে এসেছে লাখ বছর পূর্বে বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া পাখি

ফিরে-এসেছে-লাখ-বছর-পূর্বে-বিলুপ্ত-হয়ে-যাওয়া-পাখি পাঠকই সকল খবর »

জেলার খবর


ঢাকা ফরিদপুর
গাজীপুর গোপালগঞ্জ
জামালপুর কিশোরগঞ্জ
মাদারীপুর মানিকগঞ্জ
মুন্সিগঞ্জ ময়মনসিংহ
নারায়ণগঞ্জ নরসিংদী
নেত্রকোনা রাজবাড়ী
শরীয়তপুর শেরপুর
টাঙ্গাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া
কুমিল্লা চাঁদপুর
লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী
ফেনী চট্টগ্রাম
খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি
বান্দরবান কক্সবাজার
বরগুনা বরিশাল
ভোলা ঝালকাঠি
পটুয়াখালী পিরোজপুর
বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গা
যশোর ঝিনাইদহ
খুলনা মেহেরপুর
নড়াইল নওগাঁ
নাটোর গাইবান্ধা
রংপুর সিলেট
মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ
নীলফামারী দিনাজপুর
কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট
পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ
সুনামগঞ্জ কুষ্টিয়া
মাগুরা সাতক্ষীরা
বগুড়া জয়পুরহাট
চাঁপাই নবাবগঞ্জ পাবনা
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ