রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১, ০৩:০০:৪১

‘সংঘবদ্ধ ধ'র্ষণের’ শিকার ওই নারীর বিরুদ্ধে বেরিয়ে এসেছে গোপন তথ্য

‘সংঘবদ্ধ ধ'র্ষণের’ শিকার ওই নারীর বিরুদ্ধে বেরিয়ে এসেছে গোপন তথ্য

গত বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) ঢাকা থেকে কক্সবাজার স্বামী-সন্তানের সঙ্গে বেড়াতে আসা এক নারী ‘সংঘবদ্ধ ধ'র্ষণের’ শি'কার হয়েছিলেন।

বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর সিপিসি কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান জানান, বুধবার (২২ ডিসেম্বর) দিনগত রাত দেড়টার দিকে কক্সবাজার হোটেল-মোটেল জোনের জিয়া গেস্ট ইন নামের হোটেল থেকে তাকে উ'দ্ধার করা হয়।

‘সংঘবদ্ধ ধ'র্ষণের’ অভিযোগে বৃহস্পতিবার রাতে ওই নারীর স্বামী চারজনের নাম উল্লেখ ও তিনজনকে অজ্ঞাত আসামি করে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় মামলা করেন।মামলায় নাম উল্লেখ করা চার আসামি হলেন কক্সবাজার শহরের মধ্যম বাহারছড়া এলাকার আশিকুল ইসলাম, মোহাম্মদ শফি ওরফে ইসরাফিল হুদা জয় ওরফে জয়া, মেহেদী হাসান বাবু ও জিয়া গেস্ট ইন হোটেলের ম্যানেজার রিয়াজ উদ্দিন ছোটন।

তবে ‘সংঘবদ্ধ ধ'র্ষণের’ শি'কার ওই নারীর বিরুদ্ধে বেরিয়ে এসেছে গোপন তথ্য। একটি অনলাইন গণমাধ্যমকে পুলিশ জানান, ধ'র্ষণের অভি'যোগ তোলা ওই নারী চলতি বছরের জানুয়ারিতে জেলা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। সে সময় একটি মামলার আসামি হিসেবে কারাগারেও গিয়েছিলেন তিনি। তবে এর কিছু দিনের মধ্যে তিনি জামিনে ছাড়া পান।

পুলিশ জানায়, অসা'মাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে চলতি বছরের ৮ জানুয়ারি কক্সবাজার শহরের হোটেল-মোটেল জোনে অভিযান পরিচালনা করা হয়। সে সময় বেআইনি ও অসামাজিক কাজে জড়িত থাকার অভিযোগে ৫৪ জন নারী-পুরুষকে আটক করে পুলিশ।আটক হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে ওই নারীও ছিলেন। এরপর আটক হওয়া নারী পুরুষের বিরুদ্ধে ‘মানবপাচার, পতিতালয় পরিচালনা এবং পতিতাবৃত্তি ও সহায়তার’ অভিযোগ মামলা করা হয়। মামলায় ২৭ নম্বর আসামি হিসেবে ওই নারীর নাম উল্লেখ করা হয়।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি (অপারেশন) সেলিম উদ্দিন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘তাকে (ওই নারী) আট'ক করার পর মানবপাচার মামলায় কারাগারে পাঠানো হয়েছিল।’ ওই নারীর বিরুদ্ধে আর কোনো মামলা আছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও জানান ওসি।

এমটিনিউজ২৪.কম এর খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) এ ডান দিকের স্টার বাটনে ক্লিক করে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি ফলো করুন! Follow করুন এমটিনিউজ২৪ গুগল নিউজ