রবিবার, ০৩ মে, ২০২০, ০৯:৩৫:১৩

কাঁধে করে নিজেদের রেশনের খাদ্য নিয়ে অসহায়দের ঘরে ঘরে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী

কাঁধে করে নিজেদের রেশনের খাদ্য নিয়ে অসহায়দের ঘরে ঘরে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী

নিউজ ডেস্ক : বিশ্বজুড়ে ভ'য়াবহ আকার ধারণ করা মহামা'রী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মো'কাবেলায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। একই সাথে অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হতে এবং জরুরী প্রয়োজনে নির্দিষ্ট দোকানপাট ছাড়া সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে। এ পরি'স্থিতিতে জনগণকে সচেতন রাখার অংশ হিসেবে পর্যটন নগরী কক্সবাজার জেলা ও বৃহত্তর চট্টগ্রাম জেলার চারটি উপজেলায় বেসামরিক প্রশাসনকে সহযোগিতার লক্ষ্যে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১০ পদাতিক ডিভিশন ‘সকলের সুস্থতাই আমাদের কাম্য’ শ্লোগানকে সামনে রেখে তাদের সার্বিক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে।

মানুষকে করোনা বিষয়ে সচেতন করা, চিকিৎসা সহায়তা প্রদান, জীবাণুনাশক কার্যক্রম পরিচালনা ও লকডাউন বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার পাশাপাশি প্রান্তিক মানুষের কাছে নিজেদের রেশন বাঁচিয়ে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিচ্ছে সেনাবাহিনী। সং'কটময় এই প'রিস্থিতি থেকে উত্তরণে, আধার কা'টাতে অতি দরিদ্র মানুষের পাশে থাকার সাধ্যমত চেষ্টা করে যাচ্ছে তারা। 

এছাড়া জনসচেতনতায় মাক্স বিতরণ, সেনিটাইজার বিতরণ, সেনাবাহিনীর গাড়ি দিয়ে রাস্তায় বিশুদ্ধ পানি ছিটানো, কক্সবাজার প্রবেশ পথেজরুরী প্রয়োজনে প্রবেশকৃত গাড়িসমূহে জীবাণুনাশক ছিটানো, জনসচেতনতায় মাইকিং করা, ফুল হাতে দিয়ে পথচারীদের ঘরে ফেরানোসহ নানাবিধ কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছে।

এরই ধারাবাহিকতায় রোববারও জেলার প্রত্যন্ত এলাকায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কর্মহীন হতদরিদ্র মানুষের কাছে ত্রাণ পৌঁছে দিয়েছে রামু সেনানিবাসের সেনাসদস্যরা। তারা আত্মমানবতার সেবায় নিজেদের রেশন বাঁচিয়ে চাল, ডাল, আটা, আলু, পিঁয়াজ, তেল, লবণসহ নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রকৃত অভাবগ্রস্ত, ছিন্নমূল ওঅসহায় মানুষদের হাতে পৌঁছে দিয়েছেন। 

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সম্যক জ্ঞান ও সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিনা প্রয়োজনে কাউকে ঘর থেকে বের না হওয়ার অনুরোধ করেন সেনা জওয়ানরা। পাশাপাশি তারা বেশি বেশি হাত ধোয়, মাক্স ব্যবহার ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে অনুরোধ করেন।এ ছাড়া সেনাবাহিনীর মেডিকেল টিম কর্তৃক রামু উপজেলা ও পেকুয়া উপজেলায় অসহায় মানুষদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদানসহ প্রয়োজনীয় সংখ্যক স্যালাইন বিতরণেরপাশাপাশি ছোট ছোট বাচ্চাদের চিপস ওচকলেট বিতরণ করেন সেনাসদস্যরা।

রামু সেনানিবাস সূত্রে জানা যায়, করোনা ভাইরাস মো'কাবেলায় সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী তাদের উপর যে দায়িত্ব বর্তেছে তা শতভাগ পালনে সচেষ্ট থাকবেন তারা। এলক্ষ্যে দেশপ্রেমে উদ্বু'দ্ধ হয়ে মানবতার সেবায় যু'দ্ধকালীন সময়ের মতই তারা প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। দেশের স্বার্থে সকল প্রকার কর্মকান্ডে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে এবং ভবিষ্যতেও এই সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

এমটিনিউজ২৪.কম এর খবর পেতে Follow করুন এমটিনিউজ২৪ গুগল নিউজ, এমটিনিউজ২৪ টুইটার , এমটিনিউজ২৪ ফেসবুক এবং সাবস্ক্রাইব করুন এমটিনিউজ২৪ ইউটিউব চ্যানেলে