নীলফামারীর একের পর এক গ্রাম পানিতে তলিয়ে যেতে শুরু করেছে

০৪:১৭:৩৪ মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯

সর্বশেষ সংবাদ :


মঙ্গলবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১১:০৮:০৭

নীলফামারীর একের পর এক গ্রাম পানিতে তলিয়ে যেতে শুরু করেছে

নীলফামারীর একের পর এক গ্রাম পানিতে তলিয়ে যেতে শুরু করেছে

নীলফামারী: ভারী বর্ষণ ও উজানের ঢলে রংপুরের গঙ্গাচড়ার তিনটি ইউনিয়ন বিলীন হওয়ার পথে। তিস্তার পানি বেড়ে যাওয়ায় প্রায় ২০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

এমনকি প্রচণ্ড স্রোত ধারায় তিস্তা নদীর অববাহিকায় পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। যার ফলে তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার ২০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

সোমবার সন্ধ্যা ৬টায় তিস্তা পয়েন্টে পানি বিপদসীমার ৫ সেন্টিমিটার নিচে দিয়ে প্রবাহিত হয়। রাত ৯টায় তা বিপদসীমার ১৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মঙ্গলবার (১১ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে পানি বিপদসীমার ২০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে জানা গেছে।

এদিকে ডালিয়া পয়েন্টে বিপদসীমার (৫২ দশমিক ৬০ মিটার) ৩৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে ভাটিতে তীরবেগে ধাবিত হচ্ছে। উজানের ঢল সামাল দিতে খুলে রাখা হয়েছে তিস্তা ব্যারাজের ৪৪টি জলকপাট।

তিস্তায় বন্যার কারণে ডানতীরের দোহলপাড়া স্পারটির সামনের অংশের ১০মিটার নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ফলে নীলফামারীর ডিমলা ও জলঢাকা উপজেলা ও উপজেলার একের পর এক গ্রাম পানিতে তলিয়ে যেতে শুরু করেছে, প্রায় ২০টি চরগ্রাম হাঁটু থেকে কোমর পানির নিচে। এতে প্রায় ৫ হাজার পরিবার বন্যা কবলিত হয়ে পড়েছে।

ডিমলা উপজেলার পূর্ব ছাতনাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রভাষক আব্দুল লতিফ খান জানান, গত দুই দিনের চেয়ে উজানের ঢলের গতি অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে এলাকার নিচু ও উঁচু স্থানে নদীর পানি প্রবেশ করেছে।

ঝুনাগাছ চাপানি ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান বলেন, ছাতুনামার চর,ফরেষ্টের চর, সোনাখুলীর চর ও ভেন্ডাবাড়ি চরে দেড় হাজার পরিবারের বসতবাড়িতে বন্যার পানি প্রবেশ করেছে।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, উজানের ঢলের কারণে তিস্তার পানি ডালিয়া পয়েন্টে বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্বাবধাক প্রকৌশলী রংপুর পওর সার্কেল-২ জ্যোতি প্রসাদ ঘোষ বলেন, দোহলপাড়া স্পারটির সামনের এৎপ্রোন অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। বিষয়টি মঙ্গলবার সরেজমিনে তদন্ত করে দ্রুত সময়ে মেরামত করা হবে।



খেলাধুলার সকল খবর »

ইসলাম


ঘূর্ণিঝড়ের সময় রাসূল (সা.) যা করতে বলেছেন

ঘূর্ণিঝড়ের-সময়-রাসূল-সা-যা-করতে-বলেছেন

৬৫ কোটি টাকায় বিক্রি হলো কোরআন তেলাওয়াতের এই ছবি!

৬৫-কোটি-টাকায়-বিক্রি-হলো-কোরআন-তেলাওয়াতের-এই-ছবি-

‘যে রসুলকে মেনে চলেছে, সে আল্লাহকেই মেনে চলল’

‘যে-রসুলকে-মেনে-চলেছে-সে-আল্লাহকেই-মেনে-চলল’ ইসলাম সকল খবর »

এক্সক্লুসিভ নিউজ


বুলবুল বলে দিয়ে গেল 'সুন্দরবন বাঁচাও, এটাই শেষ ঝড় নয়'!

বুলবুল-বলে-দিয়ে-গেল--সুন্দরবন-বাঁচাও-এটাই-শেষ-ঝড়-নয়--

ইঞ্জিনিয়ারিং ছেড়ে ফুড ডেলিভারি, আজ তিনি বিশ্বজুড়ে ১১ রেস্তোরাঁর মালিক

ইঞ্জিনিয়ারিং-ছেড়ে-ফুড-ডেলিভারি-আজ-তিনি-বিশ্বজুড়ে-১১-রেস্তোরাঁর-মালিক

নিখুঁত ফটোগ্রাফি যেটাকে বলা হয়, এ ছবিটা ঠিক তাই

নিখুঁত-ফটোগ্রাফি-যেটাকে-বলা-হয়-এ-ছবিটা-ঠিক-তাই এক্সক্লুসিভ সকল খবর »

সর্বাধিক পঠিত


আমার মতে নাঈম আজকের ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় : রোহিত শর্মা

শেষ ম্যাচ হেরে যাদেরকে দুষলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ

সম্পদ থেকে দলের বোঝায় পরিণত হলেন মুস্তাফিজ!

মসজিদের প্রয়োজন নেই মুসলমানদের, ওই জমিতে স্কুল অথবা কলেজ চাই: সালমান খানের বাবা

পাঠকই লেখক


এক কাঁকড়ার দাম ৩৯ লাখ টাকা!

এক-কাঁকড়ার-দাম-৩৯-লাখ-টাকা-

সন্তানের আকুল কান্না মৃত্যুর জগত থেকে ফিরিয়ে এনেছে এক মৃত মাকে!

সন্তানের-আকুল-কান্না-মৃত্যুর-জগত-থেকে-ফিরিয়ে-এনেছে-এক-মৃত-মাকে-

বৃষ্টির জন্য আস্ত কৃত্রিম পাহাড় বানাচ্ছে আমিরাত!

বৃষ্টির-জন্য-আস্ত-কৃত্রিম-পাহাড়-বানাচ্ছে-আমিরাত- পাঠকই সকল খবর »

জেলার খবর


ঢাকা ফরিদপুর
গাজীপুর গোপালগঞ্জ
জামালপুর কিশোরগঞ্জ
মাদারীপুর মানিকগঞ্জ
মুন্সিগঞ্জ ময়মনসিংহ
নারায়ণগঞ্জ নরসিংদী
নেত্রকোনা রাজবাড়ী
শরীয়তপুর শেরপুর
টাঙ্গাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া
কুমিল্লা চাঁদপুর
লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী
ফেনী চট্টগ্রাম
খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি
বান্দরবান কক্সবাজার
বরগুনা বরিশাল
ভোলা ঝালকাঠি
পটুয়াখালী পিরোজপুর
বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গা
যশোর ঝিনাইদহ
খুলনা মেহেরপুর
নড়াইল নওগাঁ
নাটোর গাইবান্ধা
রংপুর সিলেট
মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ
নীলফামারী দিনাজপুর
কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট
পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ
সুনামগঞ্জ কুষ্টিয়া
মাগুরা সাতক্ষীরা
বগুড়া জয়পুরহাট
চাঁপাই নবাবগঞ্জ পাবনা
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ