বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১, ১০:২০:৩৬

অ'ত্যা'চার থেকে বাঁ'চতে পে'শা'দার খু'নি ভা'ড়া করে মা'দ'কাস'ক্ত ছেলেকে ‘খু'ন করালেন’ বাবা!

অ'ত্যা'চার থেকে বাঁ'চতে পে'শা'দার খু'নি ভা'ড়া করে মা'দ'কাস'ক্ত ছেলেকে ‘খু'ন করালেন’ বাবা!

সুনামগঞ্জ:  অ'ত্যা'চার থেকে বাঁ'চ'তে পে'শা'দার খু'নি ভা'ড়া করে মা'দ'কাস'ক্ত ছেলেকে ‘খু'ন করালেন’ বাবা! সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে এমনই এক অ'ভি'যোগ উঠে'ছে বাবার বি'রু'দ্ধে। এ ঘ'ট'নায় বুধবার (২৩ জুন) রাতে বাবা মোহাম্মদ আলীকে গ্রে'ফ'তার করেছে পুলিশ।

আজ বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) দুপুরে সুনামগঞ্জ পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সংবাদ স'ম্মে'লন করে এত'থ্য জানান জেলা পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান।

তিনি আরো বলেন, গত ২১ মে তাহিরপুরের উত্তর বড়দল ইউনিয়নের মাহারাম নদীর পা'ড়ে মাহারাম গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম (২৮) খু'ন হয়। খু'নের ঘ'ট'নায় জাহাঙ্গীর আলমের বাবা মোহাম্মদ আলী বা'দী হয়ে প্রতিবে'শী আহসান হাবিব (২২), মো. সোলাইমান (২২) ও পাশের করইতলা গ্রামের তৌফিকুল ইসলাম ভূঁইয়াকে (২৮) আ'সা'মি করে খু'নের মা'ম'লা দা'য়ের করেন। পরে তাদের গ্রে'ফ'তার করে পুলিশ। জি'জ্ঞা'সা'বা'দ করার সময় এরা খু'নের স'ঙ্গে জ'ড়ি'ত কি-না, তা নিয়ে স'ন্দে'হ হয় পুলিশের। পরে পুলিশ সুরুজ মিয়া (৫৫) নামের এক ব্যক্তিকে স'ন্দে'হজ'নকভাবে আ'ট'ক করে।

এদিকে সুরুজ মিয়া পুলিশের কাছে স্বী'কা'র করেন, এই খু'নের ঘ'ট'নার স'ঙ্গে তিনি জ'ড়ি'ত ছিলেন। তিনি জানান, জাহাঙ্গীর আলম নে'শা'গ্র'স্ত ছিলেন। তিনি তার পরিবারের লোকজনকে অ'ত্যা'চা'র করতেন। জাহাঙ্গীরের অ'ত্যা'চা'র থেকে র'ক্ষা পেতে তার বাবা মোহাম্মদ আলী তাকে ও সে'কা'ন্দা'র আলী নামের আরেকজনকে ২০ হাজার টাকায় ভা'ড়া করেন। সুরুজ মিয়া এর আগে দুই খু'নের মা'ম'লা'য় ১৭ বছর কা'রা'গা'রে ছিলেন এবং সেকান্দার আলীও ডা'কা'তির মা'ম'লায় জে'ল খা'টে'ন।

খু'নের ঘ'ট'নার আগে সুরুজ মিয়া ৫০০ টাকা দেয়ার কথা বলে জাহাঙ্গীরকে মা'হারা'ম নদীর পাড়ে ডে'কে আনেন। জাহাঙ্গীরকে খু'ন করার পর সুরুজ মিয়া মোবাইলে তার বাবা মোহাম্মদ আলীকে জানান।

গ্রে'ফ'তার সুরুজ মিয়া আ'দাল'তে দে'য়া জ'বা'নব'ন্দি'তে খু'নের সব ত'থ্য দেন। পুলিশ অপর খু'নি সে'কা'ন্দা'র আলীকে গাজীপুর জেলার শ্রীপুর থানা এলাকা থেকে গ্রে'ফ'তার করে। তিনিও আ'দা'ল'তে ১৬৪ ধরায় স্বী'কা'রো'ক্তি'মূলক জ'বা'নব'ন্দি দেন।

পরে বুধবার রাতে অ'ভি'যু'ক্ত বাবাকে নিজ বাসা থেকে গ্রে'ফ'তার করা হয়। পরে বিকেলে বি'চার'ক খালেদ মিয়া ছেলে খু'নের দা'য়ে গ্রে'ফ'তার বাবাকে কা'রা'গা'রে পা'ঠা'নোর নি'র্দে'শ দেন।

তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ তরফদার জানান, ২০ হাজার টাকায় ভা'ড়া করা পে'শা'দার অ'পরা'ধী দিয়ে ছেলে জাহাঙ্গীর আলমকে খু'ন করিয়ে মোহাম্মদ আলী তার প্রতিবেশী মা'হারা'ম গ্রামের আহসান হাবিব ও মো সোলাইমানকে এবং পাশের করইতলা গ্রামের তৌফিকুলকে ফাঁ'সা'তে চে'য়ে'ছিলেন। তাদের সঙ্গে মোহাম্মদ আলীর জমিজমা নিয়ে বি'রো'ধ ছিল।

এমটিনিউজ২৪.কম এর খবর পেতে Follow করুন এমটিনিউজ২৪ গুগল নিউজ, এমটিনিউজ২৪ টুইটার , এমটিনিউজ২৪ ফেসবুক এবং সাবস্ক্রাইব করুন এমটিনিউজ২৪ ইউটিউব চ্যানেলে