ইসরায়েলিদের আতঙ্ক কে এই মোহাম্মদ দেফ?

১০:২৫:২৯ মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১

সর্বশেষ সংবাদ :

     • অধিনায়কত্ব পেতে চলেছেন অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক      • রিকশা-বাস-ট্রেনের ক্ষেত্রে 'কঠোর বিধিনিষেধ’ থাকলেও যশোরে চলবে বিমান     • ব্যাংক এশিয়াতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি, আবেদন ৩০ জুন পর্যন্ত     • আগামী বিশ্বকাপে শিরোপা জয়ের জন্যই খেলতে যাব: তামিম     • বাইডেনের সঙ্গে বৈঠকে ‘নতুন যুগের’ সূচনা হয়েছে : এরদোয়ান     • ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত্যু কমলেও বেড়েছে শনাক্ত     • লকডাউনে ৭ জেলার মানুষ যা করতে পারবেন, যা পারবেন না     • আবু ত্ব-হাকে নিয়ে যা বললেন সিয়ামের মা     • তাহসান আজও আমার বন্ধু, আমাদের রোজ কথা হয়: মিথিলা     • ইজিবাইক-ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধে কঠোর হওয়ার আহ্বান সেতুমন্ত্রীর

সোমবার, ৩১ মে, ২০২১, ০৯:২১:৫৮

ইসরায়েলিদের আতঙ্ক কে এই মোহাম্মদ দেফ?

ইসরায়েলিদের আতঙ্ক কে এই মোহাম্মদ দেফ?

ইসরায়েলিদের আতঙ্ক কে এই মোহাম্মদ দেফ?  মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক নিরাপত্তা বিশ্লেষক ম্যাথিউ লেভিট বলেন, ‘এ নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই যে হামাসের সামরিক সক্ষমতার পেছনে যারা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে, তাদের একটা তালিকা ইসরাইলের কাছে আছে, এবং এই তালিকায় সবার উপরে আছে মোহাম্মদ দেফ।’

মোহাম্মদ দেফ সম্পর্কে আমরা যা জানি, তা মূলত ইসরাইলি এবং ফিলিস্তিনি পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত খবর থেকে। এসব রিপোর্ট অনুসারে, মোহাম্মদ দেফের জন্ম ১৯৬৫ সালে গাজার খান ইউনিস শরণার্থী শিবিরে। গাজা তখন মিসরের দখলে।

জন্মের সময় তার নাম রাখা হয়েছিল মোহাম্মদ ডিয়াব ইব্রাহীম আল-মাসরি। কিন্তু ইসরাইলি বিমান হামলা থেকে বাঁচতে তাকে যেভাবে সারাক্ষণ যাযাবরের মতো জীবন-যাপন করতে হয়, পরে তিনি পরিচিত হয়ে উঠেন ‘দেফ’ নামে, আরবিতে যার অর্থ ‘অতিথি’।

বহু দশক ধরে চলতে থাকা ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংঘাতের মধ্যে কীভাবে তিনি বেড়ে উঠেছেন, সে সম্পর্কেও জানা যায় খুব কম। হামাস যখন প্রতিষ্ঠিত হয়, তখন মোহাম্মদ দেফ একজন তরুণ। ১৯৮০’র দশকের শেষে তিনি হামাসে যোগ দেন। হামাস ইসরাইলের বিরুদ্ধে সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তুলতে চায়। হামাসের সামরিক শাখা ‘ইজেদিন আল-কাসাম ব্রিগেডে’ মোহাম্মদ দেফ বেশ দ্রুত উপরের দিকে উঠতে থাকেন, তিনি বেশ বিখ্যাত হয়ে ওঠেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের সন্ত্রাসবাদ বিরোধী উপদেষ্টা মিস্টার লেভিট বলেন, ‘তাকে বেশ কট্টরপন্থী হামাস কর্মকর্তা বলেই মনে করা হয়।’ তিনি জানান, মোহাম্মদ দেফ হামাসের খুব কট্টরপন্থী কিছু অধিনায়কের বেশ ঘনিষ্ঠ ছিলেন। এদের একজন হচ্ছেন ইয়েহিয়া আইয়াশ। তিনি ছিলেন বেশ দক্ষ এক বোমা প্রস্তুতকারক, তাকে লোকে চিনতো ‘ইঞ্জিনিয়ার’ নামে।

১৯৯০ এর দশকের শুরুতে ইসরাইলে যাত্রীবাহী বাসে অনেক কটি বোমা হামলার জন্য আইয়াশকে দায়ী করা হয়। ১৯৯৬ সালে ইসরাইল তাকে হত্যা করে। কিন্তু এর ঠিক পরেই ইসরাইলে বাসে আরো অনেক বোমা হামলা হয়।

মোহাম্মদ দেফ ছিলেন আইয়াশের শিষ্য। অভিযোগ ওঠে, প্রতিশোধ হিসেবে তিনিই এসব হামলা পরিচালনা করেছেন। এই ঘটনার পর মোহাম্মদ দেফ হামাসের সামরিক শাখায় আরো গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠেন। ২০০২ সালে হামাসের সামরিক শাখার প্রতিষ্ঠাতা সালাহউদ্দীন শেহাদেহকে হত্যার পর নতুন প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নেন মোহাম্মদ দেফ।

হামাসের যে বিখ্যাত ‘কাসাম রকেট’, সেটির পরিকল্পনা এবং তৈরির কৃতিত্ব দেয়া হয় মোহাম্মদ দেফকে। গাজার ভূগর্ভে যেসব টানেল খনন করা হয়েছে, সেগুলোও নাকি মোহাম্মদ দেফের পরিকল্পনা। তিনি নাকি বেশিরভাগ সময় এসব টানেলের মধ্যে কাটান। ইসরাইলি সামরিক বাহিনীর চোখ এড়িয়ে এখান থেকেই তিনি হামাসের সামরিক কার্যক্রম পরিচালনা করেন।

৯ বার প্রাণে বেঁচে গেছেন যেভাবে
ইসরাইলি নজরদারিকে ফাঁকি দেয়ার ওপরই নির্ভর করে মোহাম্মদ দেফের জীবন। ২০০০ সালের পরবর্তী কয়েক বছরে তাকে হত্যার জন্য ইসরাইলিরা চার দফা চেষ্টা চালায়। এর মধ্যে কয়েকটি হামলায় তিনি আহত হলেও পালাতে সক্ষম হন। ইসরাইলি রিপোর্ট অনুযায়ী, তার একটি চোখ নষ্ট হয়ে গেছে, শরীরের কয়েকটি অঙ্গ উড়ে গেছে।

২০০৬ সালে ইসরাইলের হামলায় মোহাম্মদ দেফ যে গুরুতর আহত হয়েছেন সেটা নিশ্চিত করেছেন আইডিএফের এক সাবেক গোয়েন্দা প্রধান। তিনি বিবিসিকে বলেছিলেন, ‘লোকে ভেবেছিল মোহাম্মদ দেফ আর নেতা হিসেবে বা একজন সামরিক পরিকল্পনাকারী হিসেবে কাজ করতে পারবেন না। কিন্তু খুব দ্রুতই তিনি সেরে উঠেন।’

ইসরাইলের এসব হামলা ব্যর্থ হওয়ার পর মোহাম্মদ দেফের খ্যাতি আরো বেড়ে যায়। তাকে তার শত্রুপক্ষ বর্ণনা করতে থাকে ‘৯ বারের জীবন পাওয়া বিড়াল’ বলে। ২০১৪ সালে গাজায় ইসরাইলের সামরিক অভিযানের সময় তার ওপর পঞ্চম হামলাটি চালানো হয়।

গাজার শেখ রাদওয়ান এলাকায় একটি বাড়ির ওপর ইসরাইলিরা বিমান হামলা চালায়। হামলায় মোহাম্মদ দেফের স্ত্রী উইদাদ এবং তাদের শিশুপুত্র আলি নিহত হয়। ইসরাইলিরা ভেবেছিল তারা মোহাম্মদ দেফকেও হত্যা করতে পেরেছিল। কিন্তু তিনি আসলে তখন সেই বাড়িতে ছিলেন না।

এই হামলার পরপরই হামাস জানিয়েছিল, ‘মোহাম্মদ দেফ এখনো বেঁচে আছেন এবং তিনিই হামাসের সামরিক অভিযানে নেতৃত্ব দিচ্ছেন।’

নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মোহাম্মদ দেফ যে বারবার ইসরাইলি সামরিক বাহিনীকে ফাঁকি দিতে পারছেন তার কারণ তিনি আধুনিক যোগাযোগ প্রযুক্তির ব্যবহার একেবারেই এড়িয়ে চলেন।

মিস্টার লেভিট বলেন, ‘যদি আপনি ফোন ব্যবহার না করেন, কম্পিউটার ব্যবহার না করেন, তাহলে আপনি কোথায় আছেন, সেই ধারণা পাওয়া আধুনিক গুপ্তচর সংস্থাগুলোর জন্য খুব কঠিন হবে।’

আর ইসরাইলের সাবেক গোয়েন্দা প্রধান বলছেন, মোহাম্মদ দেফকে হত্যার চেষ্টা যে ব্যর্থ হচ্ছে তার অনেক কারণ আছে। হামাসের টানেলগুলো যেরকম গভীর এবং বিস্তৃত এবং তার সম্পর্কে গোয়েন্দা তথ্য এত পুরনো, সেটা তাকে লুকিয়ে থাকতে সাহায্য করছে। এছাড়া কিছু হত্যা প্রচেষ্টার সময় অস্ত্র ঠিকমতো কাজ করেনি।

অনন্য এবং গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা
ইসরাইল এবং গাজায় যুদ্ধবিরতি কার্যকর হওয়ার এক দিন আগে হামাসের এক কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসকে (এপি) জানিয়েছিলেন, গাজায় লড়াইয়ের নেতৃত্ব দিচ্ছেন মোহাম্মদ দেফ।

আর ইসরাইলি প্রতিরক্ষা বাহিনী আইডিএফের একজন কর্মকর্তা বিবিসিকে জানান, মোহাম্মদ দেফের ব্যাপারে তাদের চেষ্টা অব্যাহত আছে। তবে এসব মিশন যেহেতু বেশ গোপনীয়, তাই তারা এর বেশি তথ্য দিতে পারছেন না।

ম্যাথিউ লেভিট বলেন, মোহাম্মদ দেফকে নিয়ে ইসরাইল যে এত বেশি মাথা ঘামাচ্ছে, সেটা তাকে অবাক করছে না। কিন্তু যেভাবে তিনি বার বার ইসরাইল হত্যা প্রচেষ্টা থেকে বেঁচে যাচ্ছেন, সেটা তাকে ঘিরে রহস্য আরো বাড়াবে।

তিনি বলেন, ‘ইসরাইল তার শেষ দেখতে আগ্রহী, কারণ তিনি হামাসের পুরনো ধারার একজন। হামাসের একেবারে শুরু থেকে যারা ছিলেন, তাদের গুটিকয় এখনো আছেন, তিনি সেই অল্প কজনের একজন। সেদিক থেকে তিনি অনন্য।’

মোহাম্মদ জীবন নিয়ে রহস্য অনেক। গাজার রাস্তায় পর্যন্ত তাকে দেখে চিনতে পারবেন খুব কম মানুষ। যে চরমপন্থা তিনি বেছে নিয়েছেন, সেটার পক্ষে কথা বলার লোকও কম।

জরিপের তথ্য উল্লেখ করে ম্যাথিউ লেভিট বলেন, ‘হামাসের বেশিরভাগ নেতার ব্যাপারে আসলে ফিলিস্তিনিদের অত মোহ নেই বলেই মনে হয়।’ কিন্তু তা সত্ত্বেও যখন যুদ্ধবিরতির কথা ঘোষণা করা হলো, তখন কিছু ফিলিস্তিনিকে মোহাম্মদ দেফের নামে শ্লোগান দেয়া থেকে বিরত রাখা যায়নি।

গাজার ধ্বংসস্তূপের মধ্যে যখন তারা গান গেয়ে যুদ্ধবিরতির ঘোষণা উদযাপন করছিলেন, তখন তারা বলছিলেন, ‘দেফ, আমাদের আত্মা এবং আমাদের রক্ত দিয়েই আমরা তোমাকে মুক্ত করবো।’ 



খেলাধুলার সকল খবর »

ইসলাম


৯৯টি চালের ওপর মহান আল্লাহর ৯৯টি গুণবাচক নাম লিখলেন ফুয়াদ

৯৯টি-চালের-ওপর-মহান-আল্লাহর-৯৯টি-গুণবাচক-নাম-লিখলেন-ফুয়াদ

প্রথম বাংলাদেশী কারী, যিনি কাতারের রেডিওতে কোরআন তিলাওয়াত করার সুযোগ পেলেন

প্রথম-বাংলাদেশী-কারী-যিনি-কাতারের-রেডিওতে-কোরআন-তিলাওয়াত-করার-সুযোগ-পেলেন

হাজার বছরের পুরনো পবিত্র কোরআনের ১৭টি প্রাচীন কপি সংগ্রহ

হাজার-বছরের-পুরনো-পবিত্র-কোরআনের-১৭টি-প্রাচীন-কপি-সংগ্রহ ইসলাম সকল খবর »

এক্সক্লুসিভ নিউজ


দুই কারণে জাপানীরা সবচেয়ে বেশি দিন বাঁচে! তাদের এই দীর্ঘায়ুর রহস্য জানলে চমকে যাবেন!

দুই-কারণে-জাপানীরা-সবচেয়ে-বেশি-দিন-বাঁচে--তাদের-এই-দীর্ঘায়ুর-রহস্য-জানলে-চমকে-যাবেন-

বাসায় আগুন লাগলে প্রথম যে কাজটি করবেন! তাড়াহুড়ায় অনেকেই যে ভুল কাজটি করেন

বাসায়-আগুন-লাগলে-প্রথম-যে-কাজটি-করবেন--তাড়াহুড়ায়-অনেকেই-যে-ভুল-কাজটি-করেন

নামকরা সংস্থার চাকরি ছেড়ে গরুর খামারি, বছরে আয় ৪৪ কোটি

নামকরা-সংস্থার-চাকরি-ছেড়ে-গরুর-খামারি-বছরে-আয়-৪৪-কোটি এক্সক্লুসিভ সকল খবর »

সর্বাধিক পঠিত


নিজের স্থাবর ও অস্থাবর সব সম্পত্তি দান করে দেওয়ার ঘোষণা দিলেন তোফায়েল আহমেদ

রেকর্ড চুরমার তামিমের, ৫২ বলে ১১টি চার আর ৭ ছক্কায় ১০৫ রান হাসানুজ্জামানের

৭ জেলায় নতুন করে লকডাউন, বন্ধ থাকবে সবধরনের যান চলাচল

৯৯টি চালের ওপর মহান আল্লাহর ৯৯টি গুণবাচক নাম লিখলেন ফুয়াদ

বিচিত্র জগৎ


একটি চোরের গোপন ইচ্ছা

একটি-চোরের-গোপন-ইচ্ছা

কাজ করিয়ে পুরো টাকা না দেওয়ায় মালিকের ৬ কোটির বাড়ি গুঁড়িয়ে দিলেন মিস্ত্রি!

কাজ-করিয়ে-পুরো-টাকা-না-দেওয়ায়-মালিকের-৬-কোটির-বাড়ি-গুঁড়িয়ে-দিলেন-মিস্ত্রি-

গোটা পরিবারের সামনে ২৮ জন স্ত্রীকে সাক্ষী রেখে ৩৭তম বিয়ে করলেন এই ব্যক্তি!

গোটা-পরিবারের-সামনে-২৮-জন-স্ত্রীকে-সাক্ষী-রেখে-৩৭তম-বিয়ে-করলেন-এই-ব্যক্তি- বিচিত্র জগতের সকল খবর »

জেলার খবর


ঢাকা ফরিদপুর
গাজীপুর গোপালগঞ্জ
জামালপুর কিশোরগঞ্জ
মাদারীপুর মানিকগঞ্জ
মুন্সিগঞ্জ ময়মনসিংহ
নারায়ণগঞ্জ নরসিংদী
নেত্রকোনা রাজবাড়ী
শরীয়তপুর শেরপুর
টাঙ্গাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া
কুমিল্লা চাঁদপুর
লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী
ফেনী চট্টগ্রাম
খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি
বান্দরবান কক্সবাজার
বরগুনা বরিশাল
ভোলা ঝালকাঠি
পটুয়াখালী পিরোজপুর
বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গা
যশোর ঝিনাইদহ
খুলনা মেহেরপুর
নড়াইল নওগাঁ
নাটোর গাইবান্ধা
রংপুর সিলেট
মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ
নীলফামারী দিনাজপুর
কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট
পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ
সুনামগঞ্জ কুষ্টিয়া
মাগুরা সাতক্ষীরা
বগুড়া জয়পুরহাট
চাঁপাই নবাবগঞ্জ পাবনা
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ