‘এতটুকু বদলায়নি তালেবান, মৃত্যুর প্রহর গুনছি’, ভয়াবহ অভিজ্ঞতা জানালেন আফগান তরুণী

০৫:৪০:৫৬ বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১


বৃহস্পতিবার, ১৯ আগস্ট, ২০২১, ১২:৪৩:৩৯

‘এতটুকু বদলায়নি তালেবান, মৃত্যুর প্রহর গুনছি’, ভয়াবহ অভিজ্ঞতা জানালেন আফগান তরুণী

 ‘এতটুকু বদলায়নি তালেবান, মৃত্যুর প্রহর গুনছি’, ভয়াবহ অভিজ্ঞতা জানালেন আফগান তরুণী

পরখা, কাবুল: মৃত্যুর প্রহর গুনছি। কবে গুলিতে ঝাঁজরা করে দেবে ওরা। দেবেই। ক’দিন ধরে বাড়ির দরজা, জানলা বন্ধ করে আমরা বসে আছি। কিন্তু এটাও জানি যে তালিবানরা (Taliban Terror) যেভাবে ঘরে ঘরে গিয়ে তল্লাশি চালাচ্ছে, তাতে খুব বেশি দিন আমি আর বাঁচতে পারব না। আপাতত ঘরে কিছু দিনের রেশন রয়েছে। তারপর? রেশন শেষ হবে। বাইরে বের হলেই…।

বাড়ি থেকে বেরনোর কোনও উপায় নেই। টিভি বন্ধ এখানে। ইন্টারনেট কখনও আছে, কখনও নেই। আমার সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছি। ফোনও অধিকাংশ সময় বন্ধ রাখতে হচ্ছে। এতকিছু করলেও আমি জানি যে আমাকে ওরা খুঁজে বার করবেই, তারপরে গুলি করে মেরে দেবে। আমার অপরাধ? আমি নিজের পরিবারের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার জন্য একটি আমেরিকান তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থায় কাজ করতাম।

তালিবান কাবুলের দখল নেওয়ার পর থেকেই আমাদের মতো যে সমস্ত আফগান ছেলে-মেয়ে আমেরিকার সংস্থায় কাজ করত তাদের মেরে ফেলতে চাইছে। আমাদের অফিসে গিয়ে ওরা সমস্ত তথ্য সংগ্রহ করছে। সঙ্গে বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদের খুঁজছে। সহকর্মীদের মধ্যে কে বেঁচে আছে, আর কে নেই তা জানি না। কতটা চিন্তার মধ্যে আছি সেটা বলে বোঝাতে পারব না। আমার আসল নাম কী সেটাও এখানে জানাতে পারছি না। বাড়িতে মা আমাকে আদর করে পরখা বলে ডাকেন। সেটাই এখানে ব্যবহার করলাম।

আমার বাড়িতে কোনও পুরুষ নেই। আমার বাবা আফগান সেনাবাহিনীতে কর্মরত ছিলেন। আমার যখন বাইশ বছর বয়স, আজ থেকে তিন বছর আগে বাবা মারা গিয়েছেন। বাড়িতে আমি, আমার দুই মা, আর দু’জন ছোটো ভাই। বাবার মৃত্যুর পরে কলেজ পাস করে আমি একটা আমেরিকান তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থায় চাকরি নিয়েছিলাম। চাকরি করে সংসার চালানো আর সঙ্গে কিছু টাকা জমানো যাতে পরবর্তীকালে আরও কিছুটা পড়াশোনা করতে পারি। সেই রাস্তা আমার জন্য বন্ধ হয়ে গেল। অবশ্য আমি কতদিন বাঁচব সেটাই প্রশ্ন। তবে, যে সমস্ত আফগান মেয়ে চাকরি করত না তাদের কলেজে যাওয়ার স্বপ্নও শেষ হয়ে গেল।

তালিবান গতকাল এখানে সাংবাদিক বৈঠক করে ঘোষণা করেছে যে মেয়েদের ওরা চাকরি করতে দেবে, পড়তে দেবে।এসব কথাতে আমরা কেউ বিশ্বাস করি না। অন্য কোনও দেশের মানুষ তালিবানকে চেনে না। ওরা যে কতটা খারাপ, কতটা নৃশংস সেটা আফগানিস্তানের বাসিন্দারা ছাড়া কেউ জানে না। মেয়েদের এরা মানুষ বলেই মনে করে না। পণ্য বলেই ভাবে। মেয়েদের নিয়ে যা ইচ্ছে তাই করা যায় এই নীতিতেই চলে তালিবান। মুখে এখন বিশ্বকে দেখানোর জন্য ভাল ভাল কথা বলছে অথচ আমার এক সাংবাদিক বান্ধবী কান্দাহারে মেয়েদের জন্য একটা লাইব্রেরি তৈরি করেছিলেন। তালিবান কান্দাহার দখল করার পরে সেই লাইব্রেরিটা জ্বালিয়ে দিয়েছে। আমার বান্ধবীকেও ওরা খুঁজছে, সে পালিয়ে বেড়াচ্ছিল। এখন আর বেঁচে আছে কিনা জানি না। তালিবান ইসলামের কথা বলে অথচ ইসলামকে যে কতটা অবমাননা করে সেটা আমরাই জানি।

আর কয়েকদিন পরেই হয়তো আমার মুখও চিরতরে বন্ধ হয়ে যাবে। কিন্তু তাতে এখন আর আমি ভয় পাচ্ছি না। আমার যা হওয়ার সেটা তো হবেই। আর কী হতে চলেছে সেটাও আমি জেনে গিয়েছি। এখন শুধু মা-দের আর ভাইদের জন্য ভাবনা হচ্ছে। ওরা বেঁচে থাকলেই শান্তি পাব। আমাদের সংস্থার পক্ষ থেকে সমস্ত কর্মীদের আমেরিকা যাওয়ার ব্যবস্থা করার কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু আমি একা যেতে রাজি হইনি। দুই মা, দু’টো ছোটো ভাইকে ফেলে কীভাবে চলে যাব? কাবুলের রাস্তায় রাস্তায় এখন তালিবান বন্দুক হাতে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এয়ারপোর্ট পর্যন্ত পৌঁছানোরই কোনও উপায় নেই।

তালিবানের যে রূপ বিশ্ব দেখছে তা আসলে তাদের মুখোশ। এরা আমাদের দেশটাকে আগেও শেষ করে দিয়েছিল আবারও শেষ করে দেবে। আর তাতে সাহায্য করছে পাকিস্তান। তালিবানের মতোই আমরা পাকিস্তানকেও ঘৃণা করি। পাকিস্তান আমাদের তরুণ প্রজন্মকে শেষ করে দিয়েছে। তাদের বিপথে পরিচালনা করেছে। এসব কথা বলে যে আর কোনও লাভ নেই সেটাও বুঝতে পারছি। তবু বিশ্বের মানুষ যাতে তালিবানের আসল চেহারাটা বুঝতে পারে তাই সবকিছু জানাতে চাইছি। সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন



খেলাধুলার সকল খবর »

ইসলাম


যার ওপর সূর্য উদিত হয়েছে তার মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ দিন হল জুমার দিন

যার-ওপর-সূর্য-উদিত-হয়েছে-তার-মধ্যে-সর্বশ্রেষ্ঠ-দিন-হল-জুমার-দিন

পবিত্র কাবা শরিফের প্রবীণ ও প্রধান মুয়াজ্জিনের সুরলিত কণ্ঠে আজান যেমন (ভিডিওসহ)

পবিত্র-কাবা-শরিফের-প্রবীণ-ও-প্রধান-মুয়াজ্জিনের-সুরলিত-কণ্ঠে-আজান-যেমন-ভিডিওসহ

টানা ৪১ দিন জামাতে নামাজ পড়ায় কিশোররা পুরস্কার পেল বাইসাইকেল, ফ্যান ও জায়নামাজ

টানা-৪১-দিন-জামাতে-নামাজ-পড়ায়-কিশোররা-পুরস্কার-পেল-বাইসাইকেল-ফ্যান-ও-জায়নামাজ ইসলাম সকল খবর »

এক্সক্লুসিভ নিউজ


শুক্রবার এলেই নববধূ হন চার সন্তানের জননী, নেপথ্যে করুণ কাহিনি!

শুক্রবার-এলেই-নববধূ-হন-চার-সন্তানের-জননী-নেপথ্যে-করুণ-কাহিনি-

গড়গড় করে ইংরাজি বলছেন কাগজকুড়ানি বৃদ্ধা! অবাক নেটিজেনরা

গড়গড়-করে-ইংরাজি-বলছেন-কাগজকুড়ানি-বৃদ্ধা--অবাক-নেটিজেনরা

মিলিয়ন ডলার অর্থ আর পদবি ছেড়ে প্রেমিকের হাত ধরলেন জাপানি রাজকুমারী

মিলিয়ন-ডলার-অর্থ-আর-পদবি-ছেড়ে-প্রেমিকের-হাত-ধরলেন-জাপানি-রাজকুমারী এক্সক্লুসিভ সকল খবর »

সর্বাধিক পঠিত


৩-০ গোলে হেরে মেসির অভাব হাড়ে হাড়ে টের পেল বার্সা

ঘরে ঘরে বঙ্গবন্ধুর ছবি রাখার অনুরোধ তথ্য প্রতিমন্ত্রীর

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ম্যাক্রোঁ বিরুদ্ধে লড়বেন প্যারিসের প্রথম নারী মেয়র

আল্লাহ সবাইকে সুস্থ রাখুক, সবার মঙ্গল হোক: প্রধানমন্ত্রী

বিচিত্র জগৎ


শুনে অবাক হচ্ছেন? টয়লেট ব্যবহার করছে গরু, করতে পারে ‘ফ্লাশ’ ও! (ভিডিও)

শুনে-অবাক-হচ্ছেন--টয়লেট-ব্যবহার-করছে-গরু-করতে-পারে-‘ফ্লাশ’-ও--ভিডিও

তরুণীর পেট থেকে অপসারণ করা হলো ২ কেজি দলা পাকানো চুল!

তরুণীর-পেট-থেকে-অপসারণ-করা-হলো-২-কেজি-দলা-পাকানো-চুল-

বিয়ের দাওয়াতে না আসায় অতিথিদের জরিমানা করলেন দম্পতি!

বিয়ের-দাওয়াতে-না-আসায়-অতিথিদের-জরিমানা-করলেন-দম্পতি- বিচিত্র জগতের সকল খবর »

জেলার খবর


ঢাকা ফরিদপুর
গাজীপুর গোপালগঞ্জ
জামালপুর কিশোরগঞ্জ
মাদারীপুর মানিকগঞ্জ
মুন্সিগঞ্জ ময়মনসিংহ
নারায়ণগঞ্জ নরসিংদী
নেত্রকোনা রাজবাড়ী
শরীয়তপুর শেরপুর
টাঙ্গাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া
কুমিল্লা চাঁদপুর
লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী
ফেনী চট্টগ্রাম
খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি
বান্দরবান কক্সবাজার
বরগুনা বরিশাল
ভোলা ঝালকাঠি
পটুয়াখালী পিরোজপুর
বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গা
যশোর ঝিনাইদহ
খুলনা মেহেরপুর
নড়াইল নওগাঁ
নাটোর গাইবান্ধা
রংপুর সিলেট
মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ
নীলফামারী দিনাজপুর
কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট
পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ
সুনামগঞ্জ কুষ্টিয়া
মাগুরা সাতক্ষীরা
বগুড়া জয়পুরহাট
চাঁপাই নবাবগঞ্জ পাবনা
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ