বৃহস্পতিবার, ১২ মে, ২০২২, ০৭:৩৯:৩০

দেরি করে আসায় উড়তে দেওয়া হলো না বিমানে, এরপরেই ঘটে যায় কাণ্ড!

দেরি করে আসায় উড়তে দেওয়া হলো না বিমানে, এরপরেই ঘটে যায় কাণ্ড!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বিমান বন্দরের কিছু নিয়ম থাকে। আপনাকে সময় মতো বিমান বন্দরে পৌঁছতেই হবে। কারণ সেখানে পৌঁছে অনেকগুলো চেকিং পর্ব পেরিয়ে তারপর উঠতে হয় বিমানে। 

নির্দিষ্ট সময় পেরিয়ে গেলে আপনাকে আর বিমান বন্দরে ঢুকতে দেওয়া হবে না। বোর্ডিং করতেও পারবেন না। এই জন্য সব সময় বিমান ছাড়ার কম করে ঘণ্টা খানেক আগে প্রবেশ করতে হয়। 

কিছুদিন আগেই সময় মতো পৌঁছতে না পেরে বিমানে উঠতে দেওয়া হয়নি অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তকেও। তাঁকে ফের পরের বিমানের টিকিট করে গন্তব্যে পৌঁছতে হয়। হাজার অনুরোধেও নিয়ম বদলাইনি। ঠিক এমন একটি ঘটনা ঘটল দিল্লি ইন্দিরা গান্ধি ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে।

বোর্ডিং গেট বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর বিমান বন্দরে পৌছায় এক পরিবার। তিন জন ব্যক্তি ছিলেন। গেট বন্ধ করার আগে অনেক বার ওই ব্যক্তিদের নাম ডাকা হয় বিমান বন্দরের কর্মীদের তরফ থেকে। কিন্তু নির্দিষ্ট সময় পেরিয়ে যাওয়ায় বন্ধ করে দেওয়া হয় গেট। দেরি করে আসায় উড়তে দেওয়া হলো না বিমানে, এরপরেই ঘটে যায় কাণ্ড!

ঠিক তারপরেই সেখানে পৌঁছান ওই তিন ব্যক্তি। কিন্তু তাঁদের জানিয়ে দেওয়া হয়, আপনারা দেরি করে এসেছেন, এখন আর বিমানে আপনাদের উঠতে দেওয়া সম্ভব নয়। এমনকি আপনাদের বোর্ডিং পাশও দেওয়া যাবে না। নিয়মের অন্যথা করা সম্ভব নয়। এরপরেই ঘটে যায় কাণ্ড।

এমটিনিউজ২৪.কম এর খবর পেতে ডান দিকের স্টার বাটনে ক্লিক করে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি ফলো করুন!

ওই তিন যাত্রীর মধ্যে একজন মহিলা ছিলেন। এই কথা শোনার পর প্যানিক অ্যাটাক হয় মহিলার। তিনি বিমান বন্দরের দরজার সামনেই মাথা ঘুরে পড়ে যান। অজ্ঞান হয়ে যান। এই ভিডিও সোশ্যাল মাধ্যমে শেয়ার হতেই ভাইরাল হয়। 

ভিডিওটি ভিপুল ভিমানি নামে এক ব্যক্তি শেয়ার করে লেখেন, "আমার সঙ্গে এই দিন আমার বোন ও আন্টি ছিলেন। তাঁদের নিয়েই বিমানে ওঠার কথা ছিল। কিন্তু হাজার অনুরোধেও আমাদের বিমানে উঠতে দেওয়া হয়নি, সামান্য দেরি হয়ে যাওয়ায়। যদিও তখনও বিমান ছাড়তে বেশ কিছুটা সময় ছিল। আমি বার বার কর্মীদের জানিয়েছিলাম আমার সঙ্গে ডায়াবেটিক ও হার্টের রোগী রয়েছে। দয়া করে যেতে দিন। ইতিমধ্যেই আন্টির প্যানিক অ্যাটাক হয়। এবং তিনি অজ্ঞান হয়ে যান। 

সিকিউরিটির কাছে বার বার সাহায্য চাই আমরা। তাঁরা দরজা বন্ধ করে দেন। বলেন এটা আমাদের কাজ নয়। এরপর অন্য একজনকে ডেকে আমাদের মেন গেটের বাইরে বের করে দিতে বলেন। এদিকে সে সময় আন্টির এই অবস্থা।" এই ভিডিও ভাইরাল হতেই জবাব দেয় এয়ার ইন্ডিয়া।

তাঁর সোশ্যাল মাধ্যমে একটি নোটিস দিয়ে গোটা ঘটনা জানান। তাছাড়াও ওই বিমান সংস্থার তরফ থেকে জানানো হয়, " ওই দিন সময় পেরিয়ে যাওয়ার অনেক পরেই আসেন ওই তিন জন। এর পর মহিলা অসুস্থ হয়ে পড়েন। 

প্যানিক অ্যাটাক হয়। সঙ্গে সঙ্গে সেখানে বিমান সংস্থার তরফে ডাক্তার পাঠানো হয়। কিন্তু ওই মহিলার বাড়ির লোকেরাই চিকিৎসা নিতে রাজি হন না। বলেন, তিনি এখন অনেকটা ঠিক আছেন। এবং কোনও রকম সুবিধা তাঁরা নিতে চান না। আমাদের তরফ থেকে সব চেষ্টাই করা হয়েছে। মিথ্যে প্রচার করা হচ্ছে এই ভিডিও। তবে ওই তিনজনকে আমরা বিমানে উঠতে দিইনি। কারণ নিয়ম সবার জন্যই এক। 

সঠিক সময়ে এসে এয়ারপোর্টে না ঢুকলে আমাদের কিছু করার নেই। তিন জন ব্যক্তির জন্য আমরা পুরো বিমানকে দেরিতে ছাড়তে পারি না।" সূত্র: নিউজ এইট্টিন

এমটিনিউজ২৪.কম এর খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) এ ডান দিকের স্টার বাটনে ক্লিক করে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি ফলো করুন! Follow করুন এমটিনিউজ২৪ গুগল নিউজ