শুক্রবার, ১৭ জুন, ২০২২, ১০:২৬:৪৬

ওমর সানী-মৌসুমীর অবশেষে সেই গুঞ্জনের সমাপ্তি!

ওমর সানী-মৌসুমীর অবশেষে সেই গুঞ্জনের সমাপ্তি!

বিনোদন ডেস্ক : চিত্রনায়িকা মৌসুমীকে হয়রানি করেন জায়েদ খান। এমন অভিযোগ এনেছেন নায়িকার স্বামী নায়ক ওমর সানি। এই অভিযোগে জায়েদ খানকে চড় মারেন তিনি। চড় খেয়ে পিস্তল বের করে তাকে গুলি করে হত্যার হুমকি দেন জায়েদ।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে এক অডিও বার্তায় জায়েদ খানের পক্ষ নেন মৌসুমী। এ নিয়ে গেলো কয়েকদিন ধরে বেশ উত্তাল সিনেমাপাড়া।

গত ১৩ জুন সানির অভিযোগের বিপক্ষে গিয়ে মৌসুমী সংবাদমাধ্যমে অডিও বার্তা দেন। সেখানে ওমর সানির সব অভিযোগ অস্বীকার করে জায়েদের পক্ষে কথা বলেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী।

এরপর গণমাধ্যমে মুখ খুলেন সানি-মৌসুমীর পুত্র ফারদিন। তিনি দাবি করেন, তার বাবার অভিযোগ সত্য। জায়েদ খান তার মাকে হয়রানি করেন। শুধু তাই নয়, তাদের ব্যবসার মধ্যেও ঝামেলা করেন জায়েদ খান।

তবে এসব বিতর্ক ও আলোচনা ভুলে আবারও এক হলেন সানি-মৌসুমী। জায়েদ ইস্যুতে তাদের ২৭ বছরের সংসার ভাঙার যে গুঞ্জন উঠেছিল তা এখানেই সমাপ্তি ঘটছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) দিনগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে ওমর সানি তার ফেসবুকে একটি ছবি পোস্ট করেন। সেখানে এক টেবিলে মুখোমুখি বসে খাবার খেতে দেখা যায় সানি-মৌসুমীকে।

ছবির ক্যাপশনে সানি লেখেন, ‘সবাই ভালো থাকবেন, দোয়া করবেন আমাদের জন্য।’ এই ছবিটি পোস্ট হতেই তা ভাইরাল হয়ে যায়। আবারও এক হয়ে যাওয়ায় সানি-মৌসুমীর ভক্তরা তাদের অভিনন্দন জানান।

প্রসঙ্গত, গত ১০ জুন অভিনেতা ডিপজলের ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠানে চিত্রনায়ক জায়েদ খানের বিরুদ্ধে পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করার হুমকির অভিযোগ তোলেন ওমর সানি। এ নিয়ে শিল্পী সমিতিতে অভিযোগও করেন তিনি। ওই অভিযোগে গুলি করার হুমকি, ওমর সানির স্ত্রী মৌসুমীকে নানাভাবে হয়রানির বিষয়ও তুলে ধরেন।

তবে অভিযোগের বিষয় পুরোটা অস্বীকার করে জায়েদ বলেন, এটা মিথ্যা খবর। এর পরদিনই সংবাদমাধ্যমে অডিও বার্তা দেন মৌসুমী। তাতে জায়েদ খানের কোনো দোষ নেই বলে উল্লেখ করেন নায়িকা।-জাগো নিউজ

Follow করুন এমটিনিউজ২৪ গুগল নিউজ, টুইটার , ফেসবুক এবং সাবস্ক্রাইব করুন এমটিনিউজ২৪ ইউটিউব চ্যানেলে

aditimistry hot pornblogdir sunny leone ki blue film
indian nude videos hardcore-sex-videos s
sexy sunny farmhub hot and sexy movie
sword world rpg okhentai oh komarino
thick milf chaturb cum memes