এমপি থেকে শুরু করে মেম্বাররাও এখন এলাকায় থাকেন না : রাষ্ট্রপতি

০৬:১১:৩১ রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯

সর্বশেষ সংবাদ :

     • মেঘনায় জালে ধরা পড়ল ৫ মণ ওজনের পানপাতা মাছ     • দুনিয়া ও আখেরাতে সুখী হওয়ার জন্য আল্লাহর রাসুল (সা.) কে অনুসরণ করুন: মাহাথির     • দেখে নিন, বিপিএল থেকে কত টাকা পাচ্ছে আফ্রিদি      • বিপিএলে বিদেশী যে ১১ জন খেলোয়াড় থাকছেন এ প্লাস ক্যাটাগরিতে     • আবুধাবি মাতালেন শাকিব খান     • শ্বশুরবাড়িতে মিষ্টির পরিবর্তে পেঁয়াজ নিয়ে হাজির জামাই, মহাখুশি শ্বশুরবাড়ির লোকজন     • যেভাবে এতটা বদলে গেলেন সেই রানু মণ্ডল     • আসাদউদ্দিন ওয়েইসি ভারতের দ্বিতীয় জাকির নায়েক : বাবুল সুপ্রিয়     • ভারত সিরিজের সুবাদে বিপিএলে নাঈমের আকাশ ছোঁয়া মূল্য     • এবার ভারতের কড়া সমালোচনা করে যা বলল ইরান

রবিবার, ১৩ অক্টোবর, ২০১৯, ১০:৪৪:৪৪

এমপি থেকে শুরু করে মেম্বাররাও এখন এলাকায় থাকেন না : রাষ্ট্রপতি

এমপি থেকে শুরু করে মেম্বাররাও এখন এলাকায় থাকেন না : রাষ্ট্রপতি

কিশোরগঞ্জ: রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, হাওরের চলমান উন্নয়ন ধরে রাখতে হলে এবং প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে টেকসই আধুনিক শিক্ষা ব্যবস্থার বিকল্প নেই। রোববার বিকেলে কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলায় রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ সরকারি কলেজ মাঠে নাগরিক কমিটি আয়োজিত এক সুধী সমাবেশে এসব কথা বলেন রাষ্ট্রপতি।

প্রাতিষ্ঠানিক ও যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের পাশপাশি শিক্ষায় হাওরাঞ্চল অনেক এগিয়ে গেছে উল্লেখ করে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে আবদুল হামিদ বলেন, শুধু ভালো রেজাল্ট অর্জন করলেই চলবে না, শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়ন না হলে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকা যাবে না। নিজেকে এমনভাবে গড়ে তুলতে হবে যাতে বিসিএসের মতো প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় টিকা যায়। এজন্য শিক্ষকদের আরও বেশি দায়িত্বশীল হতে হবে।

হাওরের তিন উপজেলায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ব্যাপক উন্নতি হয়েছে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, এতো সুযোগ-সুবিধা দেয়ার পরও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ঠিকমতো লেখাপড়া হচ্ছে না বলে আমার কাছে অভিযোগ আসে। অনেক প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষরা এলাকায় না থেকে জেলা শহরে বাস করেন। তাদের উদ্দেশ্যে বলছি, এখন থেকে অবশ্যই এলাকায় থেকে শিক্ষাদান করতে হবে। যদি ভালো না লাগে তাহলে চলে যান।

সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মস্থলে থেকে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, আগে হাওর এলাকায় কোনো সুযোগ-সুবিধা ছিল না। এখন সুযোগ-সুবিধা বেড়েছে, অনেক উন্নয়ন হয়েছে। কাজেই হাওরবাসীকে এলাকায় থেকে সেবা দিতে হবে। দায়িত্বে অবহেলা কোনাভাবেই মেনে নেয়া হবে না।

জনপ্রতিনিধিদের এলাকায় না থাকার সমালোচনা করে তিনি বলেন, এমপি থেকে শুরু করে ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বাররাও এখন এলাকায় থাকেন না, তারা জেলা শহর কিংবা রাজধানীতে থাকেন। এলাকার মানুষ প্রয়োজনে জনপ্রতিনধিদের পাশে পায় না। এভাবে চলতে পারে না। যারা এলাকায় থাকতে পারেন না, তাদের জনপ্রতিনিধি হওয়া উচিত নয়।

হাওর এলাকা নিয়ে নিজের স্বপ্ন ও পরিকল্পনার বর্ণনা দিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, হাওরকে আমি অনেক দূর নিয়ে যেতে চাই। এখানে সবগুলো উপজেলায় রেসিডেনসিয়াল স্কুল, ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট, মাছ গবেষণা ইনস্টিটিউট ও ফ্লাইওভার করে যোগাযোগ ব্যবস্থার আরও উন্নয়ন ও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে চাই। এজন্য সহযোগিতা প্রয়োজন। হাওর যেন দেশের উন্নয়নে জোরালো ভূমিকা রাখাতে পারে সেই হাওরের স্বপ্ন দেখি আমি।

আবদুল হামিদ বলেন, এক সময়ের অবহেলিত হাওর আজ উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে। আমি দিনরাত হাওরের জন্য কাজ করছি। কিন্তু এই উন্নয়নকে টেকসই করতে হলে যোগ্য লোক দরকার। শিক্ষা ছাড়া যোগ্য ও মেধাবী প্রজন্ম সম্ভব নয়। আমি অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করেছি। কিন্তু মানসম্পন্ন শিক্ষা পাওয়া যাচ্ছে না। সেদিকে সবাইকে নজর দিতে হবে। হাওরের পরিবেশ রক্ষা করতে হবে। হাওরকে আমি শহরের মতো সাজাতে চাই।

কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের এমপি রেজওয়ান আহম্মদ তৌফিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- কিশোরগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জিল্লুর রহমান, পাবলিক প্রসিকিউটর শাহ আজিজুল হক, ইটনা উপজেলা চেয়ারম্যান চৌধুরী কামরুল হাসান, ইটনা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইসমাইল হোসেন, রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ ইসলাম উদ্দিন ও জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য বজলুর রহমান প্রমুখ।



খেলাধুলার সকল খবর »

ইসলাম


ইসলাম সকল খবর »

এক্সক্লুসিভ নিউজ


গরিবদের মাঝে সব অর্থ দান করে মাকে নিয়ে এক কামরার ঘরে থাকেন নানা পাটেকর!

গরিবদের-মাঝে-সব-অর্থ-দান-করে-মাকে-নিয়ে-এক-কামরার-ঘরে-থাকেন-নানা-পাটেকর-

একবেলার খাবার টাকা দিয়ে লটারি, স্ত্রী'র কথায় ৫ কোটির মালিক সুজেন!

একবেলার-খাবার-টাকা-দিয়ে-লটারি-স্ত্রী-র-কথায়-৫-কোটির-মালিক-সুজেন-

কচু শাক শুধু দৃষ্টিশক্তি বাড়ায় না, কমায় হৃদরোগ-ডায়াবেটিসের ঝুঁকিও

কচু-শাক-শুধু-দৃষ্টিশক্তি-বাড়ায়-না-কমায়-হৃদরোগ-ডায়াবেটিসের-ঝুঁকিও এক্সক্লুসিভ সকল খবর »

সর্বাধিক পঠিত


মেসির দুর্দান্ত গোলেই চির প্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকে হারালো আর্জেন্টিনা

ভিয়েতনামকে ল'ণ্ডভ'ণ্ড করে বঙ্গোপসাগরের দিকে ছুটছে ঘূর্ণিঝড় নাকরি!

১১ জন ক্রিকেটারকে দল থেকে ছেঁটে ফেললো কলকাতা নাইট রাইডার্স

নারী শরীর নিয়ে যে কয়টি ভুল ধারণা থাকে পুরুষদের

পাঠকই লেখক


তিনটি সিদ্ধ ডিমের দাম ১৯০০ টাকা, বিল দেখেই চোখ কপালে!

তিনটি-সিদ্ধ-ডিমের-দাম-১৯০০-টাকা-বিল-দেখেই-চোখ-কপালে-

মাত্র ৯ বছর বয়সেই স্নাতক ডিগ্রি!

মাত্র-৯-বছর-বয়সেই-স্নাতক-ডিগ্রি-

৩০ বছর পর দেখা দিলো ‘ইঁদুর-হরিণ’!

৩০-বছর-পর-দেখা-দিলো-‘ইঁদুর-হরিণ’- পাঠকই সকল খবর »

জেলার খবর


ঢাকা ফরিদপুর
গাজীপুর গোপালগঞ্জ
জামালপুর কিশোরগঞ্জ
মাদারীপুর মানিকগঞ্জ
মুন্সিগঞ্জ ময়মনসিংহ
নারায়ণগঞ্জ নরসিংদী
নেত্রকোনা রাজবাড়ী
শরীয়তপুর শেরপুর
টাঙ্গাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া
কুমিল্লা চাঁদপুর
লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী
ফেনী চট্টগ্রাম
খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি
বান্দরবান কক্সবাজার
বরগুনা বরিশাল
ভোলা ঝালকাঠি
পটুয়াখালী পিরোজপুর
বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গা
যশোর ঝিনাইদহ
খুলনা মেহেরপুর
নড়াইল নওগাঁ
নাটোর গাইবান্ধা
রংপুর সিলেট
মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ
নীলফামারী দিনাজপুর
কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট
পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ
সুনামগঞ্জ কুষ্টিয়া
মাগুরা সাতক্ষীরা
বগুড়া জয়পুরহাট
চাঁপাই নবাবগঞ্জ পাবনা
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ