মা-ছেলে যখন একই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী

১১:১৬:১৫ রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০

সর্বশেষ সংবাদ :

     • কোরবানির মাঠে আসছে ‘মেসি’, দাম ২৫ লাখ টাকা     • কাজ হাসিল করতে সুন্দরী পাঁচ বান্ধবীকে বিভিন্ন জায়গায় পাঠাতেন সাহেদ     • প্র'তারক শাহেদের পাসপোর্ট জ'ব্দ     • সুখবর- এবার সরকার বিস্কুট, চাল, ডাল ও ভোজ্য তেল বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিবে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের     • পরিবারের সবাই করোনা টেস্ট করাবো, আমার জন্য দোয়া করবেন: মাশরাফি     • খ্রিস্টান হয়েও মুসলিম শিশুদের কোরআন শেখান এই বৃদ্ধ     • এ দুর্যোগকালীন সময়ে শতাধিক কর্মকর্তাকে চাকরিচ্যুত করল এবি ব্যাংক, কর্মী ছাঁটাই আজ থেকে কার্যকর     • অবিশ্বাস্য এক কাজ করেছে ১৫ বছর বয়সী কিশোর রায়হান, ফেসবুক পেজে জানালেন ব্যারিস্টার সুমন     • বিশ্বকাপ আয়োজন নিয়ে কোন দ্বিধা নেই: ইনফান্তিনো     • অমিতাভ বচ্চনের পর এবার করোনায় আক্রা'ন্ত হলেন অভিষেক বচ্চনও

বৃহস্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০২০, ১২:০৮:১৪

মা-ছেলে যখন একই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী

মা-ছেলে যখন একই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী

আবু তাহের, ফেনী: মা হুরে জান্নাত আর ছেলে আবদুল্লাহ আহসান। দুজন একই রিকশায় চড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস করতে যান। এত বড় ছেলেকে মা বিশ্ববিদ্যালয়ে দিতে আসেন, বিষয়টা নিয়ে শিক্ষার্থীদের মনে গুঞ্জন ছিল। পরে তাঁরা যে তথ্য জানতে পারেন, তা নিয়ে বিস্মিত না হয়ে উপায় নেই। কারণ, তাঁরা একই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

হুরে জান্নাত ফেনী ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের দশম ব্যাচের শিক্ষার্থী। আর তাঁর ছেলে আবদুল্লাহ আহসান একই বিশ্ববিদ্যালয়ের বাণিজ্য অনুষদের ১৮তম ব্যাচে ভর্তি হয়ে লেখাপড়া করছেন। কিন্তু কেন এমনটা হলো, সে গল্প তাঁদের কাছেই শোনা যাক।

হুরে জান্নাত ১৯৯৮ সালে সোনাগাজীর বেলায়েত হোসেন উচ্চবিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করেন। ওই বছরই নূর হোসেন নামের এক ব্যবসায়ীর সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। এরপর আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজে ভর্তি হন তিনি। কিন্তু সংসারের ঝামেলায় পড়াশোনা আর এগিয়ে নিতে পারেননি। এরই মধ্যে সংসারে আসে দুই ছেলে আবদুল্লাহ আহসান ও আবদুর রহমান। ছেলেদের বড় করতে করতেই দিন কেটে যাচ্ছিল তাঁর। একটা সময় মনে হলো, আরেকটু পড়াশোনা করা উচিত। বিয়ের এক যুগ পর ভর্তি হন উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে। ২০১২ সালে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় পাস করেন। চার বছর বিরতি দিয়ে ২০১৬ সালে ভর্তি হন ফেনী ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগে। এরই মধ্যে তাঁর বড় ছেলে আবদুল্লাহ আহসান ঢাকার মোহাম্মদপুর মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিকের পাঠ চুকিয়ে উচ্চশিক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। কিন্তু মা চান, ছেলে তাঁর সঙ্গে একই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করুন। ছেলেও সেটা মেনে এখানে ভর্তি হন।

মা ও ছেলে একই বিশ্ববিদ্যালয়ে একসঙ্গে পড়ছেন দুই বছর ধরে। মা বললেন, ‘বাসা ফেনী শহরেই। আমরা মা-ছেলে প্রায়ই একসঙ্গে ভার্সিটিতে যাওয়া-আসা করি। এ নিয়ে আমার মধ্যে কখনো অস্বস্তি লাগে না। বরং আমার কাছে স্বস্তির বিষয় হলো যে আমি ওকে নিয়ে যাচ্ছি। চোখে চোখে রাখতে পারছি। সে যাতে ঠিকভাবে নিজের পড়ালেখা শেষ করতে পারে, সেই দোয়াই করছি। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে এসে দেখা যায় অনেক ছেলে বখে যায়। কিন্তু আমার ছেলের এমনটা হওয়ার সুযোগ নেই।’

ছেলে আবদুল্লাহ আহসান এরই মধ্যে বাণিজ্য অনুষদের তৃতীয় সেমিস্টারে পড়ছেন। মায়ের পড়ার প্রতি আন্তরিকতা মুগ্ধ করে আহসানকে। অনুপ্রাণিত হন তিনি। তিনি বলেন, ‘আম্মু সব সময় আমাদের দিকে খেয়াল রাখেন। এত বড় হয়েছি তারপরও মায়ের যত্ন–আত্তি এতটুকু কমেনি। আশা করছি জীবনে ভালো কিছু করতে পারব।’

বিশ্ববিদ্যালয়ে এলএলবি অনার্সের শেষ বর্ষে আছেন হুরে জান্নাত। একটি পরীক্ষা আর ভাইভা দিলেই শেষ, পেয়ে যাবেন স্নাতক ডিগ্রি। কিন্তু নিজের সন্তানের বয়সী সহপাঠীদের সঙ্গে কেমন কেটেছে চার বছর—জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এখানে আমি বেশ কিছু ভালো বন্ধু পেয়েছি। কখনো অস্বস্তি বোধ করিনি। তারা আমার ছোট, সেটা মনে হয়নি। বরং সবার থেকে অনেক সহযোগিতা পেয়েছি। শিক্ষকেরাও অনেক আন্তরিক।’ এখন অনলাইন ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত আছেন তিনি। ভবিষ্যতে তিনি নিজেকে ভালো আইনজীবী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চান।-প্রথম আলো



খেলাধুলার সকল খবর »

ইসলাম


ইসলাম সকল খবর »

এক্সক্লুসিভ নিউজ


আমের গুণের শেষ নেই, নির্ভয়ে খান এই শর্তগুলো মেনে

আমের-গুণের-শেষ-নেই-নির্ভয়ে-খান-এই-শর্তগুলো-মেনে

ইরানের যেসব দর্শনীয় স্থান দেখে বিশ্বের পর্যটকেরা মুগ্ধ হন

ইরানের-যেসব-দর্শনীয়-স্থান-দেখে-বিশ্বের-পর্যটকেরা-মুগ্ধ-হন

জানেন কি, বাড়িতে করোনা নিয়ে আসতে পারে জুতাও! জেনে নিন বাঁচার উপায়

জানেন-কি-বাড়িতে-করোনা-নিয়ে-আসতে-পারে-জুতাও--জেনে-নিন-বাঁচার-উপায় এক্সক্লুসিভ সকল খবর »

সর্বাধিক পঠিত


আগামী বছরের জুনে এশিয়া কাপ!

দাঁত-ঠোঁট অবিকল মানুষের মতো দেখতে অদ্ভুত মাছ!

আমের গুণের শেষ নেই, নির্ভয়ে খান এই শর্তগুলো মেনে

চাচি-ভাতিজার প্রেম! বিয়ে করে জঙ্গলে ঢুকে ঘটালেন ভ'য়ঙ্কর ঘটনা!

বিচিত্র জগৎ


দাঁত-ঠোঁট অবিকল মানুষের মতো দেখতে অদ্ভুত মাছ!

দাঁত-ঠোঁট-অবিকল-মানুষের-মতো-দেখতে-অদ্ভুত-মাছ-

বিশ্বের প্রথম গোল্ডেন হোটেল, টয়লেট থেকে শুরু করে সবকিছুই সোনায় মোড়া!

বিশ্বের-প্রথম-গোল্ডেন-হোটেল-টয়লেট-থেকে-শুরু-করে-সবকিছুই-সোনায়-মোড়া-

নিজেকে নারী বলেই জানতেন অথচ তিরিশ বছর পর জানা গেল তারা দু’বোন আসলে পুরুষ!

নিজেকে-নারী-বলেই-জানতেন-অথচ-তিরিশ-বছর-পর-জানা-গেল-তারা-দু’বোন-আসলে-পুরুষ- বিচিত্র জগতের সকল খবর »

জেলার খবর


ঢাকা ফরিদপুর
গাজীপুর গোপালগঞ্জ
জামালপুর কিশোরগঞ্জ
মাদারীপুর মানিকগঞ্জ
মুন্সিগঞ্জ ময়মনসিংহ
নারায়ণগঞ্জ নরসিংদী
নেত্রকোনা রাজবাড়ী
শরীয়তপুর শেরপুর
টাঙ্গাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া
কুমিল্লা চাঁদপুর
লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী
ফেনী চট্টগ্রাম
খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি
বান্দরবান কক্সবাজার
বরগুনা বরিশাল
ভোলা ঝালকাঠি
পটুয়াখালী পিরোজপুর
বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গা
যশোর ঝিনাইদহ
খুলনা মেহেরপুর
নড়াইল নওগাঁ
নাটোর গাইবান্ধা
রংপুর সিলেট
মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ
নীলফামারী দিনাজপুর
কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট
পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ
সুনামগঞ্জ কুষ্টিয়া
মাগুরা সাতক্ষীরা
বগুড়া জয়পুরহাট
চাঁপাই নবাবগঞ্জ পাবনা
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ