দুই দেশের একটি মসজিদ!

০৪:৫০:১০ রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০

সর্বশেষ সংবাদ :

     • সব স্বপ্ন শেষ হায়দরাবাদের! ঘটল চরম নাটকীয়তা, জিতে গেল পাঞ্জাব!     • তুরস্ককে মারাত্মক পরিণতি বরণ করতে হবে : যুক্তরাষ্ট্রের হুঁশিয়ারি     • আল্লাহর রাসূল এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন— শতাব্দীর সর্ব নিকৃষ্ট অসভ্যতা: মিজানুর রহমান আজাহারী     • ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার বিরুদ্ধে সুদানে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের ঘোষণা     • ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত মাদ্রাসা সুপারকে ধাওয়া করে আটক করল জনতা     • মধ্যপ্রাচ্য জুড়ে ফরাসি পণ্য বয়কটের ডাক     • বড় সুখবর     • বিএনপি নেতা-কর্মীদের সাথে এখন কেউ মেয়ের বিয়ে দিতেও চায় না : হানিফ     • দেব-দেবী নিয়ে কটূক্তি করায় যবিপ্রবি শিক্ষার্থীর ছাত্রত্ব বাতিল     • আজ এক বিজ্ঞপ্তিতে যে তথ্য জানিয়ে দিল আবহাওয়া অধিদপ্তর

বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:৫৮:১০

দুই দেশের একটি মসজিদ!

দুই দেশের একটি মসজিদ!

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার পাথরডুবি ইউনিয়নের বাঁশজানি সীমান্তে রয়েছে দুই দেশের একটি মসজিদ। বাংলাদেশ আর ভারতের পশ্চিম বঙ্গের মানুষের মসজিদ এটি। ভারত ও বাংলাদেশের সীমান্তঘেঁষা এই মসজিদটি দুই দেশের মানুষকে এক সেতুবন্ধনে আবদ্ধ করে রেখেছে। কিন্তু মসজিটির জরাজীর্ণ অবস্থা। দুই সীমান্তের মানুষের একই দাবি, আইনি জ'টিলতা কাটিয়ে ঐতিহাসিক এই মসজিদটির একটি স্থায়ী অবকাঠামো নির্মাণ হোক।

দুই দেশের মুসলমানরা একই মসজিদে নামাজ পড়ছেন। বাংলাদেশ ও ভারত সীমানার আন্তর্জাতিক মেইন পিলার ৯৭৮ এর সাব পিলার ৯ এসের পাশে এই মসজিদটি অবস্থিত। উত্তরে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার সাহেবগঞ্জ থানার ঝাকুয়াটারী গ্রাম, দক্ষিণে কুড়িগ্রাম জেলার ভুরুঙ্গামারী উপজেলার পাথরডুবি ইউনিয়নের বাঁশজানি গ্রাম।

মসজিদটি দুই সীমান্তের শূন্য রেখায় বাংলাদেশের ভূখণ্ডে নির্মিত। এ মসজিদের নাম 'ঝাকুয়াটারী সীমা'ন্ত জামে মসজিদ'। মসজিদটির বয়স প্রায় দুই শত বছর হবে বলে দুই দেশের অধিবাসীরা জানিয়ছেন। বৃটিশ  আমল থেকেই মসজিদটি দাঁড়িয়ে আছে মুসলিম সম্প্রীতির প্রতীক হয়ে। দেশভাগের আগে আত্মীয়-স্বজন নিয়ে এখানকার সমাজ গড়ে উঠেছিল। ১৯৪৭ সালে ভারতীয় উপমহাদেশ বিভক্ত হলে গ্রামটির উত্তর অংশ ভারতের এবং দক্ষিণ অংশ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে থেকে যায়।

ভারতীয় অংশের নাম হয় ঝাকুয়াটারী, আর   বাংলাদেশের অংশ নামকরণ হয় বাঁশজানি গ্রাম। পরবর্তীতে ভারত কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ করলে ভারতের অংশটি বেড়ার বাইরে পড়ে যায়। গ্রামটি আন্তর্জাতিক সীমানা পিলার দিয়ে দুটি দেশে বিভক্ত হলেও ভাগ হয়নি তাদের সামাজিক বন্ধন। প্রতিবেশীর মতোই তাদের বসবাস। ভিন্ন সংস্কৃতি ভিন্ন দেশ হওয়া সত্ত্বেও তারা একই সমাজের বাসিন্দা, একই মসজিদের মুসল্লি।

মসজিদের মুয়াজ্জিন বাঁশজানি গ্রামের বাসিন্দা নজরুল মিয়া (৬১) বলেন, আজানের ধ্বনিতে দুই বাংলার মুসল্লিরা ছুটে আসেন মসজিদে। একসাথে নামাজ আদায় করি। একে অপরের প্রীতি আর ভালোবাসায় মুগ্ধ হই। আমরা দুই বাংলার সীমান্তবাসী দুঃখ, বেদনা ও সুখের কথা আদান প্রদান করে থাকি। একই সমাজভুক্ত হওয়ায় একে অপরের বিপ'দে-আপ'দে ছু'টে যাই আমরা।

একই গ্রামের বাসিন্দা জাহাঙ্গীর আলম (৩২) জানান, ঐতিহ্যবাহী সীমান্ত এই মসজিদটি দেখতে বাংলাদেশ ও ভারতের বিভিন্ন স্থান থেকে দর্শনার্থীরাও আসেন। তারাও এই মসজিদে নামাজ পড়েন। 

ভারতের ঝাকুয়াটারী গ্রাম থেকে আসা মুসল্লি খয়বর আলী (৭৮) বলেন, সীমান্ত মসজিদটি দুইশ বছরের পুরনো হলেও অবকাঠামোগত কোনো উন্নতি হয়নি। সীমান্তে অবকাঠামো নির্মাণে আন্তর্জাতিক আইনে বি'ধি নি'ষেধ থাকায় মসজিদের অবকাঠামো নির্মাণ সম্ভবও হচ্ছে না। দুই বাংলার মানুষের আর্থিক সহায়তা দিয়ে মসজিদটির অস্থায়ী অবকাঠামো নির্মাণ ও মেরামত করা হয়।

মসজিদের ইমাম বাঁশজানি গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিক (৪৩) বলেন, শুক্রবার জুমার নামাজে সীমান্তের এই মসজিদ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা মুসুল্লীিদের ভিড়ে প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে। বাংলাদেশ ও ভারতের মুসল্লিরা নামাজ শেষে তবারক বিতরণ করেন। ভারতের গাড়ল ঝড়া জুনিয়র হাইস্কুলের ৫ম শ্রেণির ছাত্র মাসুদ শেখ (১১) জানায়, অবসরে দুই দেশের শিশুরা মিলেমিশে খেলাধুলা করি।

ভারতের ঝাকুয়াটারী গ্রামের আহমেদ আলী (৬৫) বলেন, গ্রামের মাঝ বরাবর একটি কাঁচা সড়ক আছে। আর এই সড়কটির অর্ধেক হলো বাংলাদেশের আর অর্ধেকটা হলো ভারতের। উভয় দেশে নাগরিক যৌথভাবে এই সড়কটি ব্যবহার করি। সংস্কারের সময় আমরা যৌথভাবে কাজ করি। তিনি আরও জানান, ভারতের ঝাকুয়াটারী গ্রামে ৪৫টি পরিবারের আড়াইশ মানুষের বাস। এখানে আমাদের জমিজমা ও বসতভিটা থাকায় কাঁটাতারের বেড়া হলেও আমাদের পৈতৃকভিটা ছেড়ে ভেতরে চলে যায়নি। দুই সীমান্তের মানুষের সাথে  রয়েছে আত্মীয়তার বন্ধন। আমাদের মধ্যে কোনো প্রকার ঝগ'ড়া বি'বাদ ও জ'টিলতা সৃষ্টি হয়নি।

মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশের কফিলুর রহমান বলেন, আমাদের পূর্বপুরুষরাও এই সমাজে ছিলেন, আমরাও আছি। দুই দেশ ভাগ হলেও আমাদের সমাজ ও মসজিদ এখনো ভাগ হয়নি। কিন্তু দুই দেশের আইনি জ'টিলতা কা'টিয়ে মসজিদের স্থায়ী অবকাঠামো নির্মানের দা'বি করেন তিনি।



খেলাধুলার সকল খবর »

ইসলাম


উৎকৃষ্টতম আদর্শের কারণেই দ্রুত বিশ্বব্যাপী ইসলামের প্রচার ও জাগরণ ঘটেছে

উৎকৃষ্টতম-আদর্শের-কারণেই-দ্রুত-বিশ্বব্যাপী-ইসলামের-প্রচার-ও-জাগরণ-ঘটেছে

কোয়ারেন্টাইনে পুরো কুরআন মুখস্ত করলেন ৬ বছরের শিশু হুনাইন

কোয়ারেন্টাইনে-পুরো-কুরআন-মুখস্ত-করলেন-৬-বছরের-শিশু-হুনাইন

নামাজ আদায়ের জন্য খুলে দেওয়া হলো মসজিদুল হারাম

নামাজ-আদায়ের-জন্য-খুলে-দেওয়া-হলো-মসজিদুল-হারাম ইসলাম সকল খবর »

এক্সক্লুসিভ নিউজ


ফকির দাওয়াত পেতে এক অভিনব পদক্ষেপ গ্রহণ!

ফকির-দাওয়াত-পেতে-এক-অভিনব-পদক্ষেপ-গ্রহণ-

গাছের তলায় বিনা পয়সায় বছরের পর বছর গরীবদের পড়িয়ে চলেছেন এই বৃদ্ধ

গাছের-তলায়-বিনা-পয়সায়-বছরের-পর-বছর-গরীবদের-পড়িয়ে-চলেছেন-এই-বৃদ্ধ

যে ভালোবাসা কবুতরের, সে ভালোবাসা মানুষের নয়!

যে-ভালোবাসা-কবুতরের-সে-ভালোবাসা-মানুষের-নয়- এক্সক্লুসিভ সকল খবর »

সর্বাধিক পঠিত


বিশাল ব্যবধানে আস্থা ভোটে জয় পেলেন জাস্টিন ট্রুডো

নামাজ পড়তে অসুবিধা হয় বলেই অভিনয় ছেড়েছেন মুক্তি

জো বাইডেনের জয়, ট্রাম্পের পরাজয়

উৎকৃষ্টতম আদর্শের কারণেই দ্রুত বিশ্বব্যাপী ইসলামের প্রচার ও জাগরণ ঘটেছে

বিচিত্র জগৎ


'৪৯ বছর বয়সেই সারা বিশ্বে ১৫০ শিশুর বাবা আমি!'

-৪৯-বছর-বয়সেই-সারা-বিশ্বে-১৫০-শিশুর-বাবা-আমি--

পৃথিবীতে ‘নরকের দরজা’, জ্বলছে ৫০ বছর ধরে!

পৃথিবীতে-‘নরকের-দরজা’-জ্বলছে-৫০-বছর-ধরে-

জেনে নিন, সাপ দেখলেই যে কারণে ঝগড়ায় জড়ায় বেজি

জেনে-নিন-সাপ-দেখলেই-যে-কারণে-ঝগড়ায়-জড়ায়-বেজি বিচিত্র জগতের সকল খবর »

জেলার খবর


ঢাকা ফরিদপুর
গাজীপুর গোপালগঞ্জ
জামালপুর কিশোরগঞ্জ
মাদারীপুর মানিকগঞ্জ
মুন্সিগঞ্জ ময়মনসিংহ
নারায়ণগঞ্জ নরসিংদী
নেত্রকোনা রাজবাড়ী
শরীয়তপুর শেরপুর
টাঙ্গাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া
কুমিল্লা চাঁদপুর
লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী
ফেনী চট্টগ্রাম
খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি
বান্দরবান কক্সবাজার
বরগুনা বরিশাল
ভোলা ঝালকাঠি
পটুয়াখালী পিরোজপুর
বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গা
যশোর ঝিনাইদহ
খুলনা মেহেরপুর
নড়াইল নওগাঁ
নাটোর গাইবান্ধা
রংপুর সিলেট
মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ
নীলফামারী দিনাজপুর
কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট
পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ
সুনামগঞ্জ কুষ্টিয়া
মাগুরা সাতক্ষীরা
বগুড়া জয়পুরহাট
চাঁপাই নবাবগঞ্জ পাবনা
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ