দেশের সব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এক বেলা খাবার দেয়া হবে

১০:৪৬:৩২ মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১

সর্বশেষ সংবাদ :

     • ডিবি কার্যালয় থেকে বেরিয়ে খুশি হয়ে যা বললেন পরীমনি     • বাংলাদেশের জন্য বড় সুখবর, সন্ধান মিলল আরেকটি নতুন গ্যাসক্ষেত্রের     • কোকা কোলার বোতল সরিয়ে রোনালদো বললেন পানি খান     • পরীমনি এত রাতে বোট ক্লাবে না গেলেও পারতেন: মিশা সওদাগর     • জামায়াত-হেফাজত ও তেঁতুল হুজুররা আসলে কোনো আলেম নয় : ইনু     • করোনায় আক্রান্ত কোপা আমেরিকার ৩১ খেলোয়াড়     • হামাসের হুশিয়ারি; ইহুদিরা জেরুজালেমে পতাকা মিছিল শুরু করা মাত্রই রকেট হামলা শুরু করা হবে     • ফেসবুকে আরেকটি নতুন স্ট্যাটাস দিলেন পরীমনি যা মুহুর্তে ভাইরাল     • ছোট্র একটি আমল যা করলে জাহান্নামের আগুন তাকে স্পর্শ করবে না     • যাত্রাবাড়ী থেকে হেফাজত নেতা আজহারুল ইসলাম গ্রেপ্তার

রবিবার, ৩০ মে, ২০২১, ১২:৪৯:০৫

দেশের সব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এক বেলা খাবার দেয়া হবে

দেশের সব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এক বেলা খাবার দেয়া হবে

নিউজ ডেস্ক:  আগামী অর্থবছর থেকে পর্যায়ক্রমে দেশের সব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এক বেলা খাবার দেয়া হবে। খাবার হিসেবে বিস্কুটের পাশাপাশি, রান্না করা খাবার যেমন খিচুড়ি, ডিম ও কলা দেয়া হবে। এ জন্য আগামী ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে ১২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখার প্রস্তাব করা হচ্ছে বলে জানা গেছে। বর্তমানে সারা দেশে প্রাথমিক বিদ্যালয় আছে প্রায় ৬৬ হাজার।

এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ সালের ১৯ আগস্ট ‘জাতীয় স্কুল মিল নীতি ২০১৯’ এর খসড়া অনুমোদন দেয় মন্ত্রিপরিষদ। এরই আলোকে আগামী অর্থবছর থেকে পর্যায়ক্রমে সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দুপুরে খাবার হিসেবে বিস্কুটের পাশাপাশি খিচুড়ি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, বর্তমানে পরীক্ষামূলকভাবে দেশের ১০৪টি উপজেলার ১৫ হাজার ৩৪৯টি বিদ্যালয়ে খাবার দেয়া হচ্ছে। এর মধ্যে তিনটি উপজেলায় রান্না করা খাবার দেয়া হচ্ছে। বাকিগুলোতে বিস্কুট দেয়া হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট এক সূত্র জানায়, খাবার দেয়ার ফলে বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি বেড়েছে। এর মধ্যে রান্না করা খাবার দিলে ১১ শতাংশ উপস্থিতি বৃদ্ধি পায়। আর বিস্কুট দিলে ৬ শতাংশ বৃদ্ধি পায়। সরকারি পরিকল্পনা হলো, যে এলাকায় যে ধরনের খাবারের প্রয়োজন সে ধরনের খাবার দেয়া হবে। প্রতিদিন একই খাবার না দিয়ে খাবারে বৈচিত্র্য থাকবে। মিড ডে মিলের সবচেয়ে লাভজনক দিক হলো, শিক্ষার্থী ঝরে পড়া কমবে। শিক্ষার মান বাড়বে।

জানা গেছে, প্রথম দিকে সপ্তাহে তিন দিন সবজি খিচুড়ি, বাকি তিন দিন বিস্কুট দেয়া হবে। প্রতিদিন প্রতিটি শিশুকে ৫৩৩ ক্যালরি পুষ্টিসমৃদ্ধ খাবার দেয়া হবে। তবে যেদিন ডিম-খিচুড়ি দেয়া হবে সেদিন ৬৩০ ক্যালরি পাবে শিক্ষার্থীরা। লক্ষ্য রাখা হবে শিশুরা যাতে ক্ষুধা নিয়ে বিদ্যালয়ে না আসে।

জানা গেছে, ২০১৯ সালে মিড ডে মিল নিয়ে যে নীতিমালা করা হয় তাতে বলা হয়েছে, দেশের অনেক জায়গায় পাইলট বেসিসে চালু হয়েছে। এগুলোকে কিভাবে সমন্বিতভাবে সারা দেশে ছড়ানো যায় তার জন্য এই নীতিমালা। এটি বাস্তবায়নের জন্য জাতীয় স্কুল মিল কর্মসূচি বাস্তবায়ন কর্তৃপক্ষ গঠন করা হবে। এই কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে একটি সেল বা ইউনিট কাজ করবে। কার্যক্রমের পরিধি সম্প্রসারণে প্রয়োজনবোধে প্রাথমিক মন্ত্রণালয়ের অধীনে একটি পৃথক জাতীয় স্কুল মিল কর্মসূচি কর্তৃপক্ষ গঠনের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

স্কুল মিল কর্মসূচির কার্যক্রমের ধরন ও ব্যবস্থাপনা নিয়ে গাইডলাইন সম্পর্কে বলা হয়েছে, প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় শক্তি চাহিদার ক্যালরির ন্যূনতম ৩০ শতাংশ স্কুল মিল থেকে আসা নিশ্চিত করা হবে, যা প্রাক-প্রাথমিক ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত ৩-১২ বছরের ছেলে ও মেয়েশিশুদের জন্য প্রযোজ্য হবে।

অর্ধদিবস স্কুলের ক্ষেত্রে দৈনিক প্রয়োজন অনুপুষ্টিকণার চাহিদার ন্যূনতম ৫০ শতাংশ নিশ্চিত করা। এ ছাড়া জাতীয় খাদ্যগ্রহণ নির্দেশিকা অনুযায়ী দৈনিক প্রয়োজনীয় শক্তির ১০-১৫ শতাংশ প্রোটিন থেকে এবং ১৫-৩০ শতাংশ চর্বি থেকে আসা নিশ্চিত করা হবে। ন্যূনতম খাদ্য তালিকার বৈচিত্র্য বিবেচনায় নিয়ে ১০টি খাদ্যগোষ্ঠীর মধ্যে ন্যূনতম চারটি খাদ্যগোষ্ঠী নির্বাচন নিশ্চিত করা হবে।



খেলাধুলার সকল খবর »

ইসলাম


প্রথম বাংলাদেশী কারী, যিনি কাতারের রেডিওতে কোরআন তিলাওয়াত করার সুযোগ পেলেন

প্রথম-বাংলাদেশী-কারী-যিনি-কাতারের-রেডিওতে-কোরআন-তিলাওয়াত-করার-সুযোগ-পেলেন

হাজার বছরের পুরনো পবিত্র কোরআনের ১৭টি প্রাচীন কপি সংগ্রহ

হাজার-বছরের-পুরনো-পবিত্র-কোরআনের-১৭টি-প্রাচীন-কপি-সংগ্রহ

রেডিও শুনে শুনে পবিত্র কোরাআনের হাফেজ হলেন মরু রাখাল

রেডিও-শুনে-শুনে-পবিত্র-কোরাআনের-হাফেজ-হলেন-মরু-রাখাল ইসলাম সকল খবর »

এক্সক্লুসিভ নিউজ


দুই কারণে জাপানীরা সবচেয়ে বেশি দিন বাঁচে! তাদের এই দীর্ঘায়ুর রহস্য জানলে চমকে যাবেন!

দুই-কারণে-জাপানীরা-সবচেয়ে-বেশি-দিন-বাঁচে--তাদের-এই-দীর্ঘায়ুর-রহস্য-জানলে-চমকে-যাবেন-

বাসায় আগুন লাগলে প্রথম যে কাজটি করবেন! তাড়াহুড়ায় অনেকেই যে ভুল কাজটি করেন

বাসায়-আগুন-লাগলে-প্রথম-যে-কাজটি-করবেন--তাড়াহুড়ায়-অনেকেই-যে-ভুল-কাজটি-করেন

নামকরা সংস্থার চাকরি ছেড়ে গরুর খামারি, বছরে আয় ৪৪ কোটি

নামকরা-সংস্থার-চাকরি-ছেড়ে-গরুর-খামারি-বছরে-আয়-৪৪-কোটি এক্সক্লুসিভ সকল খবর »

সর্বাধিক পঠিত


যাদু দেখালেন নেইমার, উদ্বোধনী ম্যাচে ৩-০ গোলে ব্রাজিলের জয়লাভ

ধর্ষণ চেষ্টাকারীর নাম জানালেন পরীমনি

পাকিস্তানের উপহার আম ফিরিয়ে দিল চীন-যুক্তরাষ্ট্রসহ সাত দেশ

প্রথম বাংলাদেশী কারী, যিনি কাতারের রেডিওতে কোরআন তিলাওয়াত করার সুযোগ পেলেন

বিচিত্র জগৎ


কাজ করিয়ে পুরো টাকা না দেওয়ায় মালিকের ৬ কোটির বাড়ি গুঁড়িয়ে দিলেন মিস্ত্রি!

কাজ-করিয়ে-পুরো-টাকা-না-দেওয়ায়-মালিকের-৬-কোটির-বাড়ি-গুঁড়িয়ে-দিলেন-মিস্ত্রি-

গোটা পরিবারের সামনে ২৮ জন স্ত্রীকে সাক্ষী রেখে ৩৭তম বিয়ে করলেন এই ব্যক্তি!

গোটা-পরিবারের-সামনে-২৮-জন-স্ত্রীকে-সাক্ষী-রেখে-৩৭তম-বিয়ে-করলেন-এই-ব্যক্তি-

একই সাথে ১০ সন্তানের জন্ম দিয়ে গিনেস রেকর্ড!

একই-সাথে-১০-সন্তানের-জন্ম-দিয়ে-গিনেস-রেকর্ড- বিচিত্র জগতের সকল খবর »

জেলার খবর


ঢাকা ফরিদপুর
গাজীপুর গোপালগঞ্জ
জামালপুর কিশোরগঞ্জ
মাদারীপুর মানিকগঞ্জ
মুন্সিগঞ্জ ময়মনসিংহ
নারায়ণগঞ্জ নরসিংদী
নেত্রকোনা রাজবাড়ী
শরীয়তপুর শেরপুর
টাঙ্গাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া
কুমিল্লা চাঁদপুর
লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী
ফেনী চট্টগ্রাম
খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি
বান্দরবান কক্সবাজার
বরগুনা বরিশাল
ভোলা ঝালকাঠি
পটুয়াখালী পিরোজপুর
বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গা
যশোর ঝিনাইদহ
খুলনা মেহেরপুর
নড়াইল নওগাঁ
নাটোর গাইবান্ধা
রংপুর সিলেট
মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ
নীলফামারী দিনাজপুর
কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট
পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ
সুনামগঞ্জ কুষ্টিয়া
মাগুরা সাতক্ষীরা
বগুড়া জয়পুরহাট
চাঁপাই নবাবগঞ্জ পাবনা
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ