রবিবার, ০২ মে, ২০২১, ০৯:৪১:২১

গরুর রশিতে হাত বেঁধে পাকা রাস্তায় গরু ছেড়ে দিয়ে এতিম শিশুকে অমানবিক নির্যাতন

গরুর রশিতে হাত বেঁধে পাকা রাস্তায় গরু ছেড়ে দিয়ে এতিম শিশুকে অমানবিক নির্যাতন

ছয় বছরের দুরন্ত শিশু নাজমুল, বাড়ি নরসিংদীর শিবপুরে। সব সময় মেতে থাকে খেলাধুলা আর দুষ্টুমিতে। দারুণ চঞ্চল এই শিশুর জন্য কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে খেলাধুলা আর দুষ্টুমি। রোববার শিশু নাজমুলের সাথে দুষ্টুমিতে জড়ান গ্রামের শওকত আলী (৫০)। দুষ্টুমি আর খেলাধুলার একপর্যায়ে নাজমুলের হাত বাঁধেন তিনি। হাত বাঁধার পর তাকে বেঁধে দেন গরুর রশিতে। পাকা রাস্তায় ছেড়ে দেয়া হয় গরুটিকে। এতে গরু দৌড় দিলে শিশু নাজমুল রাস্তায় পড়ে যায়। আর গরুটি তাকে টেনেহিঁচড়ে ছুটতে থাকে। এ সময় থেতলে যায় শিশু নাজমুলের সারা শরীর।

অভিযুক্ত শওকত আলী (৫০) উপজেলার মাছিমপুর ইউনিয়নের মিয়ারগাঁও গ্রামের বাসিন্দা।
অভিযুক্ত শওকত আলীকে শিবপুর মডেল থানার পুলিশ রোববার বিকেলে গ্রেফতার করেছে। আহত নামজুল (৬) মিয়ারগাঁও গ্রামের মৃত আলম মিয়ার ছেলে। অভিযুক্ত শওকত আলী একই গ্রামের মৃত রওশন আলীর ছেলে। শনিবার সকালে তাকে নিয়ে স্থানীয় লোকজন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করলে ঘটনাটি জানাজানি হয়।

নাজমুলের পরিবার জানায়, শুক্রবার সন্ধ্যায় নাজমুলের সাথে দুষ্টুমিতে জড়ান শওকত আলী। একপর্যায়ে নাজমুলকে গরুর রশির সাথে দুই হাত বেঁধে পাকা রাস্তায় গরু ছেড়ে দেন। এতে গরু দৌড় দিলে নাজমুল রাস্তায় পড়ে যায়। তখন গরু তাকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যায়। ফলে পেটের বিভিন্ন অংশের বেশ কিছু জায়গায় চামড়া উঠে যায়।

শিশু নাজমুলের ফুফাত বোন বলেন, আমরা এর বিচার চাই। একটা বাচ্চা ছেলের সাথে কেউ এ রকম করতে পারে না। এ বিষয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।

নাজমুলের ফুফাত বোন সুমি আরো জানান, তার বাবা নেই। মা স্থানীয় একটি কারখানায় চাকরি করেন। নাজমুল নানার বাড়িতে থাকে। সে একজন এতিম।

এ ব্যাপারে শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাউদ্দিন মিয়া জানান, এ বিষয়ে মামলা হয়েছে। মামলার আসামি শওকত আলীকে (৫০) রোববার বিকেলে গ্রেফতার করে থানায় আনা হয়েছে।

এমটিনিউজ২৪.কম এর খবর পেতে Follow করুন এমটিনিউজ২৪ গুগল নিউজ, এমটিনিউজ২৪ টুইটার , এমটিনিউজ২৪ ফেসবুক এবং সাবস্ক্রাইব করুন এমটিনিউজ২৪ ইউটিউব চ্যানেলে