রবিবার, ০৮ মে, ২০২২, ১০:২৩:৫৭

কান্নায় ভেঙে পড়লেন দেবের প্রেমিকা রুক্মিণী

কান্নায় ভেঙে পড়লেন দেবের প্রেমিকা রুক্মিণী

বিনোদন ডেস্ক: দেব এবং রুক্মিণী। টলিউডের অন্যতম জুটিকে ঘিরে উন্মাদনার অন্ত নেই। 'চ্যাম্প' -এর আগেই দুই তারকার সম্পর্কের সমীকরণ স্পষ্ট হয়েছিল। বর্তমানে দুই অভিনেতার বিয়ের খবর ঘুরপাক খাচ্ছে টালিগঞ্জে। প্রথম ছবি মুক্তির আগেই রুক্মিণীর বাবার সঙ্গে পরিচয় হয়েছিল দেবের। কিন্তু, নায়িকার বাবা সেভাবে সিনেমা ভক্ত ছিলেন না। 

ফলত দেব যে বাংলা ছবির সুপারস্টার সে কথা বুঝতেই পারেননি রুক্মিণীর বাবা সৌমেন্দ্রনাথ মৈত্র! চলতি মাসেই 'দিদি নম্বর ওয়ান' -এ এসেছিল টিম 'কিশমিশ'। 

ওই রিয়েলিটি শোতে বিভিন্ন ধরনের খেলার সময় দুর্দান্ত মজা করেন দেব, রুক্মিণী সহ গোটা 'কিশমিশ' ব্রিগেড। আর এই গেমের মাঝেই নায়িকা জানান, দেবের সঙ্গে তাঁর বাবার প্রথম সাক্ষাতের কথা। কী কথা হয়েছিল দু'জনের মধ্যে সে কথাও ফাঁস করেন দাপুটে নায়িকা।

'কিশমিশ' -এর রোহিণীর কথায়, "আমার বাবা ১৫ বছর কোনও সিনেমা দেখেননি। স্বাভাবিকভাবেই দেবকে তিনি চিনতেন না। বাবা দেবকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন, 'তুমি কী করো?' দেব খুব শান্তভাবে বলেছিল, 'আমার নাম দীপক অধিকারী। আমি ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করেছি। একটু আধটু রাজনীতি করছি।"

নায়িকার এই কথা শুনে হাসির রোল ওঠে 'দিদি নম্বর ওয়ান' -এর মঞ্চে। দেবের রসবোধের তারিফও করেন অনেকে। কিন্তু, এরপরেই পরিস্থিতি পালটে যায় এবং কান্নায় ভেঙে পড়েন রুক্মিণী। 

পরে তিনি জানান, প্রথম ছবি চ্যাম্প মুক্তি পাওয়ার ১১ দিন আগেই তাঁর বাবা মারা গিয়েছিলেন। রুক্মিণীর কথায়, "এখন আমি একের পর এক কাজ করছি। বলিউডেও কাজ করলাম। 

ফিল্মটা খুব ভালো চলল। একটাই আফসোস। বাবা দেখে যেতে পারলেন না। আমি জানি জীবনে আফসোস রাখা উচিত নয়। কিন্তু, এটা খালি মনে হয়।"

প্রেমিকাকে কান্নায় ভেঙে পড়তে দেখে দেব তাঁকে জড়িয়ে ধরে সান্ত্বনা দেন। বলেন, "এখানে দেখতে পারেননি তাতে কী হয়েছে, উনি ডিরেক্ট ভগবানকে বলে দিচ্ছেন সিনেমাটিকে সাফল্য পাইয়ে দেওয়ার জন্য।" এরপরেই কথার পরিপ্রেক্ষিতে ফের স্বাভাবিক ছন্দে ফেরেন রুক্মিণী।

এদিকে 'দাদাগিরি'-র মঞ্চে এই তারকা জুটির বিয়ে কবে, সে নিয়ে প্রশ্ন করেন Sourav Ganguly। কোনও রাখঢাক না করেই সৌরভ লাভ বার্ডসকে জিজ্ঞাসা করেন, "কবে বিয়ের কার্ড হাতে পাব?" ক্ষণিকের জন্য একটু অপ্রস্তুত হন দেব। তারপরেই তাঁর পালটা উত্তর, “আরে আমাদের কে বিয়ে করবে বলো?”

দাদাও দমবার পাত্র নন! তিনি বলেন, "অন্য কারও সঙ্গে নয়, পরস্পরকে কবে বিয়ে করছেন?" রুক্মিণীর চটজলদি উত্তর, "এই তো ঠিক আছে। দেব বলেন বিয়ে করলেই তো খরচ বাড়বে!" এরপরেই দেব আর রুক্মিণীকে সৌরভ পরামর্শ দেন জলদি বিয়ে সেরে নেওয়ার। বলেন, "বিয়ে করে নিলে ইমপ্রেস করার খরচটা কমে যায়!"-এই সময়

এমটিনিউজ২৪.কম এর খবর পেতে Follow করুন এমটিনিউজ২৪ গুগল নিউজ, এমটিনিউজ২৪ টুইটার , এমটিনিউজ২৪ ফেসবুক এবং সাবস্ক্রাইব করুন এমটিনিউজ২৪ ইউটিউব চ্যানেলে