৩০ গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় ভরসা জহিরন বেওয়া

১০:১৩:৪৮ রবিবার, ০৫ জুলাই ২০২০

সর্বশেষ সংবাদ :

     • কোয়ারেন্টিন শেষে ২১৯ প্রবাসীকে পাঠানো হলো কারাগারে     • সুশান্তকে বিভিন্ন সময়ে নানাভাবে অপমান করেছেন করণ জোহর     • দেশে শেষ ১৩ দিনে করোনায় ৫০০ মৃত্যু     • 'প'রিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হবে না'     • জুলাই মাস বাংলাদেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে     • ১ আগস্ট ঈদ হলে বেশি বোনাস পাবেন সরকারি চাকুরেরা!     • গরিব-অসহায়দের সাহায্য করুন, একমাত্র আল্লাহই আমাদের করোনার হাত থেকে বাঁচাতে পারেন : মুশফিক     • এবার ১০ হাজার বেডের বিশ্বের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতাল চালু হলো যেখানে     • করোনার মধ্যেই ভয়ঙ্কর 'মগজ খেকো' অ্যামিবার সন্ধান, চ'রম আত'ঙ্ক     • ভারতের পর চীনের ব্যবসায় বড় ধাক্কা দিতে বসেছে ইংলান্ড

শনিবার, ২১ এপ্রিল, ২০১৮, ০৩:৩২:০০

৩০ গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় ভরসা জহিরন বেওয়া

৩০ গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় ভরসা জহিরন বেওয়া

লালমনিরহাট থেকে : ৩০ গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় ভরসা জহিরন বেওয়া। দীর্ঘ ৪৪ বছর ধরে বাইসাইকেল চালিয়ে গ্রামের অসহায় মানুষের স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে আসছেন এক নারী। বয়স তার ৯৫। কিন্তু উদ্যম, সাহস, কর্ম দক্ষতা একটুও কমেনি। লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার ভেলাবাড়ী ইউনিয়নের ভারত সীমান্ত ঘেঁষা তালুক দুলালী  গ্রামের  জহিরন বেওয়া।

এ বয়সে বাড়ীর বারান্দায় কিংবা কোন গাছের ছায়ায় বসে নাতি-নাতনিদের রূপকথার গল্প শোনানো অথবা তাদের উচ্ছল খেলাধুলা দেখে সময় কাটানোর কথা।

কিন্তু তা না করেই প্রতিদিন ছুটে বেড়াচ্ছেন গ্রামের পর গ্রাম মাইলের পর মাইল। কারো অসুস্থতার সংবাদ পেলেই নাওয়া-খাওয়া ভুলে বাইসাইকেলে চড়ে ছুটে যান সেই রোগীর বাড়িতে চিকিৎসা সেবা দিতে।তালুক দুলালী গ্রামের মৃত সায়েদ আলীর স্ত্রী জহিরন বেওয়া।

স্বামী মারা যান ১৯৬৮ সালে। এরপর  শারীরিক ও মানুষিকভাবে ভেঙে পড়েন তিনি। তিন ছেলে আর দুই মেয়েকে নিয়ে তার সংসার। আট বছর আগে বড় ছেলে দানেশ আলী ৬৮ বছর বয়সে মারা যান। ছোট ছেলে তোরাব আলীর বয়স ৫৯।

সংসারে এই সংগ্রামী নারী এখনো সচল, সজাগ আর কর্মউদ্যমী হয়ে বেঁচে আছেন।সমাজের প্রচলিত রীতিনীতি ভেঙে ১৯৭৩ সালে জহিরন পরিবার পরিকল্পনার অধীনে স্বাস্থ্যসেবা ও পরিবার পরিকল্পনা বিষয়ে ছয় মাসের প্রশিক্ষণ নিয়েছেন।

পরে চুক্তিভিত্তিক মাসিক মজুরিতে কাজে যোগ দেন।নিজ গ্রামসহ আশ-পাশের গ্রামগুলোতে সাইকেল চালিয়ে গ্রামবাসীদের স্বাস্থ্যসেবা দিতেন। ২শ থেকে ৩শ অবশেষে ৫শ টাকা মাসিক মজুরি পেয়ে ১০ বছর চাকরি করে অবসরে যান জহিরন।

চাকরি বাদ দিলেও অর্জিত অভিজ্ঞতা বাদ দেননি তিনি। তাই বাড়িতে বসে না থেকে আবারো গ্রামবাসীর স্বাস্থ্যসেবায় মনোযোগী হয়ে উঠেন জহিরন।  খনো কাজ করছেন হাসি মুখে। গ্রামের লোকজনের কাছে তার বেশ সুনাম রয়েছে। কেউবা জহিরন দাদি, কেউবা নানি আবার কেউবা জহিরন আপা বলে সম্বোধন করেন তাকে।

ভেলাবাড়ী গ্রামের স্কুলশিক্ষিকা  রাবেয়া  সুলতানা জানালেন, গেলো ৪৪ বছর ধরে জহিরন বেওয়াকে দেখছি বাই সাইকেল চালিয়ে গ্রামের পর  গ্রাম মাইলের পর মাইল ঘুরে ঘুরে গ্রামের অসহায় মানুষগুলোকে স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে আসছেন।জহিরন  বলেন, আমি শুধু সাধারণ রোগ যেমন-জ্বর, মাথা ব্যথা, বমি শারীরিক দুর্বলতাসহ রোগের চিকিৎসা দিয়ে থাকি।

এর জন্য আমাকে কোন টাকা দিতে হয় না। তবে আমি বাজারমূল্যে তাদের কাছে ওষুধ বিক্রি করি। এতে প্রতিদিন গড়ে দেড়শ’ টাকা আয় হয়।তিনি বলেন, আদিতমারী উপজেলার ৩০টি গ্রামে দু’ হাজারের বেশি পরিবারের সঙ্গে রয়েছে আমার নিবিড় যোগাযোগ। আমি প্রতিদিন সাইকেল চালিয়ে কমপক্ষে ৭টি গ্রামে ৭০টি বাড়িতে যাই। তাদের খোঁজখবর নিই।

তার দাবি, গেলো ৫০ বছরে তিনি কোন রোগে আক্রান্ত হননি।সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টি নারীর প্রতি অবিচার রোধ, শিক্ষা আর পছন্দানুযায়ী পেশা নির্বাচনের সুযোগ নিয়েও কাজ করছেন তিনি।

এমটিনিউজ২৪/এম.জে/ এস



খেলাধুলার সকল খবর »

ইসলাম


ইসলাম সকল খবর »

এক্সক্লুসিভ নিউজ


ইরানের যেসব দর্শনীয় স্থান দেখে বিশ্বের পর্যটকেরা মুগ্ধ হন

ইরানের-যেসব-দর্শনীয়-স্থান-দেখে-বিশ্বের-পর্যটকেরা-মুগ্ধ-হন

জানেন কি, বাড়িতে করোনা নিয়ে আসতে পারে জুতাও! জেনে নিন বাঁচার উপায়

জানেন-কি-বাড়িতে-করোনা-নিয়ে-আসতে-পারে-জুতাও--জেনে-নিন-বাঁচার-উপায়

দুটি পাথরে ভাগ্য বদল, শ্রমিক থেকে এক দিনেই ৩০ কোটি টাকার মালিক!

দুটি-পাথরে-ভাগ্য-বদল-শ্রমিক-থেকে-এক-দিনেই-৩০-কোটি-টাকার-মালিক- এক্সক্লুসিভ সকল খবর »

সর্বাধিক পঠিত


দ্বিতীয় করোনা টেস্ট নিয়ে যা জানালেন মাশরাফী

আমরা ভণ্ড জাতি, তাই এদেশে জ্ঞানী জন্মায় না : রুবেল হোসেন

ফেরি করে হাঁড়ি-পাতিল বেচে মেয়েকে বিসিএস ক্যাডার বানালেন বাবা

সুখবর, ২৪ জন মানুষের শরীরে করোনার টিকা দিয়ে সফলতা

বিচিত্র জগৎ


বিশ্বের প্রথম গোল্ডেন হোটেল, টয়লেট থেকে শুরু করে সবকিছুই সোনায় মোড়া!

বিশ্বের-প্রথম-গোল্ডেন-হোটেল-টয়লেট-থেকে-শুরু-করে-সবকিছুই-সোনায়-মোড়া-

নিজেকে নারী বলেই জানতেন অথচ তিরিশ বছর পর জানা গেল তারা দু’বোন আসলে পুরুষ!

নিজেকে-নারী-বলেই-জানতেন-অথচ-তিরিশ-বছর-পর-জানা-গেল-তারা-দু’বোন-আসলে-পুরুষ-

সন্তানদের মৃত্যু দেখে বেঁচে থাকার ইচ্ছেটুকুই হারিয়ে ফেলল এক মা হাঁস!

সন্তানদের-মৃত্যু-দেখে-বেঁচে-থাকার-ইচ্ছেটুকুই-হারিয়ে-ফেলল-এক-মা-হাঁস- বিচিত্র জগতের সকল খবর »

জেলার খবর


ঢাকা ফরিদপুর
গাজীপুর গোপালগঞ্জ
জামালপুর কিশোরগঞ্জ
মাদারীপুর মানিকগঞ্জ
মুন্সিগঞ্জ ময়মনসিংহ
নারায়ণগঞ্জ নরসিংদী
নেত্রকোনা রাজবাড়ী
শরীয়তপুর শেরপুর
টাঙ্গাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া
কুমিল্লা চাঁদপুর
লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী
ফেনী চট্টগ্রাম
খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি
বান্দরবান কক্সবাজার
বরগুনা বরিশাল
ভোলা ঝালকাঠি
পটুয়াখালী পিরোজপুর
বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গা
যশোর ঝিনাইদহ
খুলনা মেহেরপুর
নড়াইল নওগাঁ
নাটোর গাইবান্ধা
রংপুর সিলেট
মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ
নীলফামারী দিনাজপুর
কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট
পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ
সুনামগঞ্জ কুষ্টিয়া
মাগুরা সাতক্ষীরা
বগুড়া জয়পুরহাট
চাঁপাই নবাবগঞ্জ পাবনা
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ