এইচএসসিতে রাজশাহী বোর্ডে ৪র্থ হওয়া সাদাত এখন খু'নের আসামি

০৫:০০:৫৭ শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯

সর্বশেষ সংবাদ :

     • মেডিকেলে চান্স পেলেন রাস্তার খুপরিতে থাকা হতদরিদ্র পরিবারের একমাত্র কন্যা মাহফুজা     • কারাগারের উচ্চ নিরাপত্তার ভেতরে থেকেও কারাগারে বসেই সাড়ে ৮ কোটি টাকা চুরি!     • প্রথম থেকেই শিরোপা জেতার লক্ষ্য নিয়ে খেলেছি: শান্ত     • চাচার লোভ আছে আমার সম্পত্তিতে : এরশাদপুত্র এরিক     • পরীক্ষায় শূন্য পাওয়া সারাফিনা এখন পদার্থ বিজ্ঞানের সেরা গবেষক     • ২১ বছর বয়সেই ভারতের বিচারপতি হয়ে নজির গড়তে চলেছেন প্রতাপ সিংহ!     • মাঝ আকাশে হঠাৎ যাত্রীবাহী বিমানে আ'গু'ন ও কালো ধোঁয়া!     • এক কোটি টাকায় আল্লু অর্জুনের সঙ্গে খোলামেলা হতে রাজি হলেন কাজল     • মদিনায় মৃত্যু: এই যুবকের শেষ ইচ্ছা ছিল হজ পালন ও মদিনা জিয়ারত     • ইসলাম নিয়ে সেই ষড়যন্ত্রেরই একটি অংশ বাবরি মসজিদ ভেঙে মন্দির নির্মাণ : চরমোনাই পীর

বুধবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৯, ১০:৩৪:০৭

এইচএসসিতে রাজশাহী বোর্ডে ৪র্থ হওয়া সাদাত এখন খু'নের আসামি

এইচএসসিতে রাজশাহী বোর্ডে ৪র্থ হওয়া সাদাত এখন খু'নের আসামি

জয়পুরহাট: এইচএসসিতে রাজশাহী বোর্ডে ৪র্থ হওয়া সাদাত এখন খু'নের আসামি। বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হ'ত্যা মামলার এজাহারে থাকা ১৭ নম্বর আসামি জয়পুরহাট সদর উপজেলার কড়ই উত্তরপাড়ার হাফিজুর রহমানের ছেলে নাজমুস সাদাতকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৩টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা শাখার একটি দল দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার কাটলা বাজার এলাকার সাদাতের এক আত্মীয় রফিকুলের বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করে। তার উদ্দেশ্য ছিল কাটলা সীমান্ত ব্যবহার করে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার।

সাদাতের বাবা হাফিজুর ২০০৭ সাল থেকে রাজশাহীর বিভিন্ন স্কুলে চাকরি করছেন এবং বর্তমানে হাজী মহসীন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে বিষয়ে শিক্ষকতা করছেন। এর আগে তিনি জয়পুরহাট রামদেও বাজলা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন। চাকরির কারণে হাফিজুর প্রথমে জয়পুরহাট শহরে এবং বর্তমানে রাজশাহী মহানগরের হেলেনাবাদে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করেন। গ্রামে হাফিজুরকে সবাই চিনলেও তার ছেলে সাদাতকে সেভাবে কেউ চেনে না, তবে বাবা-মায়ের সঙ্গে ঈদ ও বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গ্রামে আসেন।

বিত্তশালী পরিবারের সন্তান সাদাত প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের যন্ত্রকৌশল বিভাগের ১৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থী, বাবা স্কুলে চাকরি করলেও মা সাদিয়া বেগম একজন গৃহিণী। দুই সন্তানের মধ্যে সাদাত বড়।

জানা গেছে, ছোটবেলা থেকেই মেধাবী সাদাত ৫ম ও ৮ম শ্রেণিতে বৃত্তিসহ ২০১৫ সালে রাজশাহী গর্ভমেন্ট ল্যাবরেটরি হাইস্কুল থেকে গোল্ডেন প্লাসসহ রাজশাহী বোর্ডে তৃতীয় স্থান অর্জন করে। সর্বশেষ ২০১৭ সালে রাজশাহী কলেজ থেকে এইচএসসিতে গোল্ডেন জিপিএসহ রাজশাহী বোর্ডে চতুর্থ স্থান অর্জন করে পরিবারসহ স্থানীয়দের অবাক করে দেয়। এরপর ঢাবি, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট, রুয়েট ও কুয়েটের ভর্তি পরীক্ষায় সুযোগ পেলেও শেষ পর্যন্ত বুয়েটকেই বেছে নেন তিনি।

তার দাদা মাওলানা আছির উদ্দিন স্থানীয় কড়ই নুরুল হুদা কামিল মাদরাসার অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক। দাদাসহ সাদাতের দুই চাচা গ্রামে থাকেন। মেজ চাচা আমিনুল ইসলাম ক্ষেতলাল উপজেলার হোপপীরহাট মাদরাসার শিক্ষক এবং ছোট চাচা ওবায়দুর রহমান কমিউনিটি ক্লিনিকে চাকরি করেন।

কড়ই নুরুল হুদা কামিল মাদরাসার ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষক আব্দুল মতিন জানান, সাদাতের বাবা হাফিজুর রহমান সম্পর্কে তার আপন চাচাতো ভাই। সাদাত তার দাদার বাড়ি খুব কম আসত। গ্রামের মানুষ তাকে চিনতো সজীব নামে। গ্রেফতার হওয়ার পর বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর দেখে তারা আবরার হ'ত্যাকা'ণ্ডের সঙ্গে সাদাতের জড়িত থাকার বিষয়টি জানতে পারেন।

সাদাতের চাচা ওবাইদুর রহমান বলেন, সাদাত যদি অপরাধী হয় তাহলে আইন তার বিচার করবে। না হলে সে আমাদের মাঝে নির্দোষ প্রমাণিত হয়ে ফিরে আসুক।
সাদাতের বাবা হাফিজুর রহমান জানান, সাদাত পরিস্থিতির শি'কার। তবে দোষ প্রমাণিত হলে অবশ্যই শাস্তি হওয়া উচিত।



খেলাধুলার সকল খবর »

ইসলাম


ইসলাম সকল খবর »

এক্সক্লুসিভ নিউজ


চাকরি ছেড়ে ফ্ল্যাট বিক্রি করে সিঙ্গাড়া বিক্রি, ৪ বছরে কোটিপতি দম্পতি!

চাকরি-ছেড়ে-ফ্ল্যাট-বিক্রি-করে-সিঙ্গাড়া-বিক্রি-৪-বছরে-কোটিপতি-দম্পতি-

ভ্যানচালক ছেলেটি আজ বিসিএস ক্যাডার সরকারি চিকিৎসক

ভ্যানচালক-ছেলেটি-আজ-বিসিএস-ক্যাডার-সরকারি-চিকিৎসক

মাটির নিচে নয়, গাছের ডগায় হয় মিসরীয় পেঁয়াজ!

মাটির-নিচে-নয়-গাছের-ডগায়-হয়-মিসরীয়-পেঁয়াজ- এক্সক্লুসিভ সকল খবর »

সর্বাধিক পঠিত


পোলার্ডকে গাড়ি থেকে নামিয়ে তার ব্যাগপত্রও ফেলে দিলেন রোহিত শর্মা!

বিয়ের শপিং করতে কলকাতায় গেলেন মাশরাফি

যেসব খাবার খেলে দ্রুত লম্বা হবে শিশু

শেষ পর্যন্ত দুই পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামছে বাংলাদেশ!

পাঠকই লেখক


নিজের বিয়েতে কনে এলেন কফিনে শুয়ে!

নিজের-বিয়েতে-কনে-এলেন-কফিনে-শুয়ে-

শেষ পর্যন্ত দোকানে বিক্রি হচ্ছে গোবরের কেক!

শেষ-পর্যন্ত-দোকানে-বিক্রি-হচ্ছে-গোবরের-কেক-

গাছে ধরে মিসরের পেঁয়াজ!

গাছে-ধরে-মিসরের-পেঁয়াজ- পাঠকই সকল খবর »

জেলার খবর


ঢাকা ফরিদপুর
গাজীপুর গোপালগঞ্জ
জামালপুর কিশোরগঞ্জ
মাদারীপুর মানিকগঞ্জ
মুন্সিগঞ্জ ময়মনসিংহ
নারায়ণগঞ্জ নরসিংদী
নেত্রকোনা রাজবাড়ী
শরীয়তপুর শেরপুর
টাঙ্গাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া
কুমিল্লা চাঁদপুর
লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী
ফেনী চট্টগ্রাম
খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি
বান্দরবান কক্সবাজার
বরগুনা বরিশাল
ভোলা ঝালকাঠি
পটুয়াখালী পিরোজপুর
বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গা
যশোর ঝিনাইদহ
খুলনা মেহেরপুর
নড়াইল নওগাঁ
নাটোর গাইবান্ধা
রংপুর সিলেট
মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ
নীলফামারী দিনাজপুর
কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট
পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ
সুনামগঞ্জ কুষ্টিয়া
মাগুরা সাতক্ষীরা
বগুড়া জয়পুরহাট
চাঁপাই নবাবগঞ্জ পাবনা
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ