সোমবার, ০৯ মে, ২০২২, ১১:৩৬:৩৪

যাকে আক্রমণে এনে বাজিমাত করলেন ধোনি

যাকে আক্রমণে এনে বাজিমাত করলেন ধোনি

স্পোর্টস ডেস্ক: ধোনি কী জিনিস আবারো তা চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিলেন। তিনি এক শেষ ভরসার নাম তা প্রমাণে সমর্থ হলেন। গতকালের খেলায় ৩৬ রানে দুই ওপেনারকে হারিয়ে চাপে পড়ে যায় দিল্লি। 

এরপর চাপ কাটিয়ে দলকে টেনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন মিচেল মার্শ ও অধিনায়ক ঋষভ পন্থ। দুজনের জুটিতে ওঠে ৩৬। মইন আলিকে আক্রমণে নিয়ে এসে বাজিমাত করেন ধোনি। মার্শকে তুলে নেন মইন। ২০ বলে ২৫ রান করে আউট হন মার্শ। দশম ওভারের প্রথম বলেই মইনের বলে বোল্ড হন ঋষভ (১১ বলে ২১)।
 
প্লে অফের টিকিটের জন্য দুই দলের কাছেই ম্যাচটা ছিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ। জিতলে প্লে অফের দিকে আরও একধাপ এগিয়ে যেত দিল্লি ক্যাপিটালস। 

অন্যদিকে, প্লে অফের ক্ষীণ আশা টিকিয়ে রাখতে গেলে জেতা ছাড়া রাস্তা ছিল না চেন্নাই সুপার কিংসের সামনে। মরণবাঁচন ম্যাচে দারুণভাবে জ্বলে উঠল চেন্নাই সুপার কিংস। দিল্লি ক্যাপিটালসকে ৯১ রানে উড়িয়ে প্লে অফের স্বপ্ন জিইয়ে রাখল ধোনি ব্রিগেড। দায়িত্ব নিয়েই চেন্নাইকে বদলে দিয়েছেন ক্যাপ্টেন কুল।

এদিন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ডেভন কনওয়ের দাপটে দিল্লি ক্যাপিটালসের সামনে জয়ের জন্য ২০৯ রানের বড় লক্ষ্য রেখেছিল চেন্নাই সুপার কিংস। ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় দিল্লি। 

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই শিকর ভরতকে তুলে নেন সিমরনজিত সিং। ৫ বলে ৮ রান করেন ভরত। পঞ্চম ওভারে আবার আঘাত দিল্লির। এবার ফর্মের শিখরে থাকা ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নারকে ফেরান মহেশ থিকসানা। ১২ বলে ১৯ রান করে আউট হন ওয়ার্নার।

৩৬ রানে দুই ওপেনারকে হারিয়ে চাপে পড়ে যায় দিল্লি। এরপর চাপ কাটিয়ে দলকে টেনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন মিচেল মার্শ ও অধিনায়ক ঋষভ পন্থ। দুজনের জুটিতে ওঠে ৩৬। 

মইন আলিকে আক্রমণে নিয়ে এসে বাজিমাত করেন ধোনি। মার্শকে তুলে নেন মইন। ২০ বলে ২৫ রান করে আউট হন মার্শ। দশম ওভারের প্রথম বলেই মইনের বলে বোল্ড হন ঋষভ (১১ বলে ২১)। 

একই ওভারের চতুর্থ বলে রিপাল প্যাটেলকে (৬) তুলে নেন মইন। তখনই জয়ের আশা শেষ হয়ে যায় দিল্লির। এক ওভার পরে অক্ষর প্যাটেলকে (১) ফেরান মুকেশ চৌধুরি। রভম্যান পাওয়েলকেও (৩) একই ওভারে তুলে নেন। শেষ পর্যন্ত ১৭.৪ ওভরে ১১৭ রানে গুটিয়ে যায় দিল্লির ইনিংস। ১৩ রানে ৩ উইকেট নেন মইন।

এদিন টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে তুলল ২০৮। ৩৩ বলে ৪১ রান করেন ঋতুরাজ গায়কোয়াড়। তিনি আউট হওয়ার পর দুর্দান্ত ব্যাটিং করে দলকে এগিয়ে নিয়ে যান ডেভন কনওয়ে। 

৪৯ বলে ৮৭ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলে দলের বড় রানের ভিত গড়ে দেন। কনওয়ের ইনিংসে রয়েছে ৭টি চার ও ৫টি ছয়। শিবম দুবে ১৯ বলে ৩২ রান করেন। অম্বাতি রায়ুডু এদিনও রান পাননি। 

৬ বলে ৫ রান করে তিনি। ধোনি দলকে ২০০ রানের গন্ডি পার করে দেন। ৮ বলে ২১ রান করে অপরাজিত থাকেন। ৪০ রানে ৩ উইকেট নেন নর্টিয়ে। ২৮ রানে ২ উইকেট নেন খলিল আহমেদ। ১টি উইকেট নেন মিশেল মার্শ।

এমটিনিউজ২৪.কম এর খবর পেতে Follow করুন এমটিনিউজ২৪ গুগল নিউজ, এমটিনিউজ২৪ টুইটার , এমটিনিউজ২৪ ফেসবুক এবং সাবস্ক্রাইব করুন এমটিনিউজ২৪ ইউটিউব চ্যানেলে