সোমবার, ০৯ মে, ২০২২, ০৫:৪৮:৪৫

তরমুজ খাওয়ার আগে যে ভুলটি আমরা করি!

তরমুজ খাওয়ার আগে যে ভুলটি আমরা করি!

এক্সক্লুসিভ ডেস্ক: তরমুজ খেতে কে না পছন্দ করে! আর যদি হয় লাল টকটকে তরমুজ তাহলে তো কোন কথায়ই নেই। এই গরমে লাল টকটকে এক ফালি ঠান্ডা তরমুজ, আহ! গরমে গলদঘর্ম হয়ে এসে ঠান্ডা তরমুজ খেতে কারই না ভালো লাগে বলুন তো! 

কেবল স্বাদেই উন্নত নয়, শরীরকে হাইড্রেটেট রাখতে ও সতেজ রাখতে সহায়তা করে এই ফল। বিশেষজ্ঞদের মতে, তরমুজের মধ্যে ৯২ শতাংশ জল। 

এতে ভিটামিন-এ এবং সি, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি উপাদান রয়েছে। তবে, শরীর সুস্থ রাখতে ফ্রিজে রাখা এই ফল কখনই নয়। জেনে নিন বৈজ্ঞানিক কারণ:

রোজমানচায় কম বেশি সকলেই ফ্রিজের উপর নির্ভরশীল। দীর্ঘ সময় খাবার সংরক্ষণ রেখে অনেকখানি সহজ করে দেয় এই বস্তুটি। তাই এখনকার জীবনে রেফ্রিজারেটর ছাড়া কোনও উপায় থেকে না। 

কিন্তু বিশেষজ্ঞদের মতে, আমারা খাবার বা ফল রাখার সময় না জেনেই ছোটখাট কিছু ভুল করে ফেলি যার থেকে হতে পারে নানা সমস্যা। বিশেষ করে গরমের সময়। আম-জাম-লিচুর মতো রসালো ফল ফ্রিজে রেখে দিই। 

আর এই ফ্রিজে রাখা ফল খেতে যেমন তৃপ্তিদায়ক তেমন আবার স্বাস্থ্যের উপরও প্রভাব ফেলে। তাই ভ্রূ না কুঁচকে বরং জেনে নিন।

গরমকালের ফলের মধ্যে অন্যতম তরমুজ৷ এটি শরীরকে ঠান্ডা করার পাশাপাশি এই ফলের উপকারও অনেক বলে রোজ ডায়েটে রাখার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। 

এই ফল আমাদের সানস্ট্রোক থেকে রক্ষা করে এবং শরীর হাইড্রেটেড রাখে। তবে, এই ফল ফ্রিজে রাখা কখনই উচিত নয় বলা হয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, তরমুজ সবসময় ফ্রিজের বাইরে রাখতে হবে, কারণ এগুলি কম তাপমাত্রায় ক্ষয়ক্ষতির ঝুঁকি বেশি থাকে।
তরমুজের উপকারিতা

গরমে সতেজ থাকতে বৈশাখের গরমে এই ফলের চাহিদা সব থেকে বেশি। কেবল প্রশান্তিই নয়, স্বাস্থ্যগত দিক বিবেচনা করলে তরমুজ এগিয়ে। তরমুজে আছে লাইকোপেন, অ্যামাইনো অ্যাসিড, ভিটামিন, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও জল। রূপচর্চায় ব্যবহার বা খাওয়া—দু'ভাবেই তরমুজের উপকারিতা পাওয়া সম্ভব। 

গবেষণায় দেখা গিয়েছে, তরমুজে থাকা অ্যান্টি–অক্সিডেন্ট স্ট্রোকের মতো ঝুঁকি কমাতে আর উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। তরমুজে ফ্যাটের পরিমাণ একেবারেই কম। গবেষণায় আরও জানা গিয়েছে, তরমুজে থাকা লাইকোপেন নামে যে উপাদান রয়েছে তা ক্যানসারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে সাহায্য করে। তরমুজ খাওয়ার আগে আমরা একটি ভুল করে থাকি!

কেন রাখা উচিত নয়? বিশেষজ্ঞদের মতে তরমুজ কেটে কখনই ফ্রিজে সংরক্ষণ করবেন না। কারণ, শরীরের জন্য ভালো নয়। এর স্বাদ এবং রংও ম্লান হয়ে যায়। এছাড়াও, যদি কাটা অবস্থা ফল রাখা হয় তাতে ব্যাকটেরিয়া বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে যা স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতি করতে পারে। 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি অধিদফতরের (USDA) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ঘরের তাপমাত্রায় তরমুজ, ক্যান্টলাপ বা আমের মতো ফল রাখা ভালো। এগুলি বাইরে রাখলে ফলের মধ্যে যে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলি উপস্থিত থাকে তা আমাদের দেহের জন্য বিভিন্ন উপায়ে উপকারী।

পুষ্টিগুণ থাকে না: গবেষণা বলছে, ফ্রিজে তরমুজ রাখলে এর অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের গুণ নষ্ট হয়ে যায়। সে জন্য রুম টেম্পারেচারে রাখলে সবচেয়ে বেশি সুস্বাদু হবে আর এর পুষ্টিগুণও বজায় থাকবে। তাই খুব প্রয়োজন না থাকলে ফ্রিজে রাখা উচিত নয় আর যদিও রাখেন তাহলে বেশিদিন রেখে খাবেন না।

ফল ও সবজি একসঙ্গে ফ্রিজে নয়: ফল এবং সবজিগুলি কখনই ফ্রিজে একসঙ্গে সংরক্ষণ করা উচিত নয়। সবসময় আলাদা করে রেখে দিন। কারণ ফল ও সবজি বিভিন্ন ধরণের গ্যাস ছেড়ে দেয়। তাদের একসঙ্গেসঞ্চয় করলে শরীরে সমস্যা তৈরি করতে পারে।

ডিসক্লেইমার: এই প্রতিবেদনটি কেবলমাত্র সাধারণ তথ্যের জন্য, আরও বিস্তারিত জানতে হলে সর্বদা বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।-এই সময়

এমটিনিউজ২৪.কম এর খবর পেতে Follow করুন এমটিনিউজ২৪ গুগল নিউজ, এমটিনিউজ২৪ টুইটার , এমটিনিউজ২৪ ফেসবুক এবং সাবস্ক্রাইব করুন এমটিনিউজ২৪ ইউটিউব চ্যানেলে