১১:২৮:৪৪ রবিবার, ১৬ জুন ২০১৯

সর্বশেষ সংবাদ :

     • সেনাবাহিনীকে সব সময় জনগণের পাশে দাঁড়াতে হবে : প্রধানমন্ত্রী     • মাঠে নামার আগে দারুণ সুখবর পেল বাংলাদেশ     • সোমবারের ম্যাচে বাংলাদেশকে হালকাভাবে নেয়া যাবেনা : লয়েড     • যে কারণে টয়লেটের ফ্ল্যাশে রয়েছে '২ বাটন'     • বিশ্বকাপে ঘোড়ায় চড়ে খেলা দেখতে গেলেন পাকিস্তানি সমর্থক     • পাকিস্তানকে ৩৩৭ রানের বিশাল টার্গেট দিল ভারত     • ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে বিরল রেকর্ড গড়লেন মহেন্দ্র সিং ধোনি     • ভারতের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের উপদেশ মানলেন না অধিনায়ক সরফরাজ!     • ভারত ব্যাটিং করতে না পারলে পাকিস্তানের সামনে যে টার্গেট দাঁড়াবে     • ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলবেন না মুশফিক!

সোমবার, ০৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৫, ১০:৫০:১৭

গফরগাঁওয়ের হাতপাখা শিল্প, পাঁচ শতাধিক পরিবার স্বাবলম্বী

গফরগাঁওয়ের হাতপাখা শিল্প, পাঁচ শতাধিক পরিবার স্বাবলম্বী

মো: ইয়াসিন, গফরগাঁও, ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ হাতপাখা। এটি শুধু গরম থেকে আত্মরক্ষার উপকরণই নয়; চিরায়ত গ্রাম-বাংলার কুটির শিল্পের অন্যতম অংশও বটে। হাতপাখা তৈরি ও বিক্রি করে এদেশের গ্রামাঞ্চলের এক শ্রেণীর নিম্ন আয়ের মানুষ এখনো জীবন-জীবিকা নির্বাহ করছে। এমনই এক অঞ্চল গফরগাঁও উপজেলার বলদী গ্রাম। উপজেলা সদর থেকে ৮ কি.মি।


দক্ষিণ-পশ্চিমে হযরত শাহ্ মিসকিন (রা.)- এর পূণ্যভূমি সংলগ্ন এ গ্রামে এখনো শুরু হয়নি নগর সভ্যতার ধাপাধাপি, নেই যানবাহনের ভেঁপু। ফুল ফলে রস তীর্থও নয় এ গ্রাম। তবে ছিমছাম নৈসর্গিক পরিবেশ
নিঃসন্দেহে দৃষ্টিনন্দন। গ্রামের উত্তর ও পূর্ব অংশের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া শীলা নদী ও পশ্চিম-উত্তর অংশে বৃহৎ ছত্রাইল বিলের জলরাশির কলকল শব্দ হতদরিদ্র মানুষের মনকুঞ্জে দেয় দোলা। ভৌগোলিক দিক থেকে নিম্নাঞ্চল হওয়ার কারণে গ্রামের মানুষজন প্রায় প্রতি বছর বন্যায় ফসলহানিসহ নানা সমস্যায় পতিত হয়।
গুটিকয়েক পরিবার ছাড়া এ গ্রামের প্রায় সবাই ছিল হতদরিদ্র, দিনমজুর, মৎস্য শিকারি, প্রান্তিক ও বর্গাচাষি।
 

বাংলার চিরায়ত কার্তিক-চৈত্রের অভাবের ভয়াবহতার চিত্র ছিল এদের নিত্যদিনের সঙ্গী। আবার কেউ কেউ নদী, খাল-বিলে মাছ শিকার করে সংসার চালাত। স্বভাবতই গ্রামের অধিকাংশ লোক একসময় ছিল হতদরিদ্র, দিনমজুর। আর্থ- সামাজিক অবস্থায় পিছিয়ে থাকা বলদী গ্রামের পুরো ছবি এখন হাতপাখার বদৌলতে বদলে গেছে। যে গ্রামের শিশুদের অদৃষ্টে ছিল মজুরি, তারা এখন লেখাপড়া করছে। বুঝতে শেখার আগেই
পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে হাতপাখা তৈরির কাজে লেগে যায়। গড়ে তোলে আগামীর একেকটি স্বপ্ন। ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার অভাবগ্রস্ত এ মানুষগুলোর ভাগ্য পরিবর্তন হয়ে এখন সোনালি স্বপ্নে বিভোর তাদের যাপিত জীবন। কারণ তাদের হাতে ধরা দিয়েছে আয়ের এক উৎসমূল। বলদী গ্রামে এসে কথা
হয় বর্তমানে স্বাবলম্বী কয়েকজন পাখা নির্মাণকারী ও বিক্রেতার সঙ্গে। তারা একে একে বর্ণনা করে তাদের সুদিন আসার সংক্ষিপ্ত কাহিনী। জামেনা খাতুন নামে মধ্য বয়সী এক মহিলা স্বামী পরিত্যক্ত হয়ে
নিজ বাড়িতে সেলাইয়ের কাজ করতেন। স্বল্প দাম ও মানের কাপড় দিয়ে শিশুদের পোশাক ও মহিলাদের ব্লাউজ তৈরি করে বিক্রি করতেন পাড়ার লোকজনের কাছে।
 

যা আয় হতো তা দিয়েই চলত তার সংসার। একযুগ আগের কথা। এক সময় শুরু করলেন কাপড়ে নক্শা করে বাঁশ দিয়ে হাতপাখা তৈরির কাজ। আপন পরিকল্পনায় জামেনা খাতুনের আয়ের পথ সুগম হলো। গ্রামের
মহিলা ভিক্ষুকদের হাত দিয়ে পর্যায়ক্রমে তার বিপণন শুরু করলো গ্রাম থেকে গ্রামে।
 

জামেনা খাতুনের ক্রমবর্ধনশীল এ শিল্পের প্রসার দেখে এলাকার উৎসাহী নারী-পুরুষ অনেকেই তার কাছ থেকে হাতেকলমে শিক্ষা নিয়ে শুরু করেন পাখা তৈরির কাজ। পাখা প্রস্তুতকারক নারী ও শিশু শ্রমিকদের মাধ্যমে নির্দিষ্ট শ্রমের বিনিময়ে কাজটি সম্পন্ন করতে হয়। একজন পাখা শ্রমিক দৈনিক ১২-১৫টি পাখা তৈরি
করতে পারেন। এখানে তৈরি হয় তিন ধরনের পাখা। উন্নত পাখার মূল জমিনে নানা রঙের সুতা দিয়ে নকশি আঁকা থাকে। নকশির পাশে মিহি সুতায় গাঁথা থাকে গ্রামীণ শ্লোক, ছড়া ও ভালোবাসার ছন্দ।
দৃষ্টিনন্দন এ পাখাগুলোর উৎপাদন খরচ ১৫/২০ টাকা। মাঝারি ধরনের পাখায় নকশি বা কারুকাজ থাকে কম এবং এর উৎপাদন খরচ ১০/১২ টাকা। নকশি বা ঝালরবিহীন সাধারণ পাখা চলে বেশি। মাত্র ৫ টাকা
এর উৎপাদন খরচ। পাখা তৈরির পর শ' হিসেবে এই পেশায় নিয়োজিত পাইকার ও বিক্রেতারা ক্রয় করেন। প্রতি শ'তে লাভ হয় ৪শ' টাকার বেশি।

২২ আগস্ট ২০১৫/এমটিনিউজ২৪/প্রতিনিধি/এইচএস/কেএস



খেলাধুলার সকল খবর »

ইসলাম


দীর্ঘ ১৮০ বছর অপেক্ষার পর মসজিদে নামাজ পড়ার অনুমতি পেল গ্রিসের মুসল্লিরা

দীর্ঘ-১৮০-বছর-অপেক্ষার-পর-মসজিদে-নামাজ-পড়ার-অনুমতি-পেল-গ্রিসের-মুসল্লিরা

যে দোয়াটি পড়লে ৭০ টি বিপদ থেকে মুক্তি পাবেন, সর্বনিম্নটি হলো দারিদ্রতা

যে-দোয়াটি-পড়লে-৭০-টি-বিপদ-থেকে-মুক্তি-পাবেন-সর্বনিম্নটি-হলো-দারিদ্রতা

ঘোর বিপদে সবাই মুখ ফিরিয়ে নিলেও, মহান আল্লাহপাক ফিরিয়ে নেননা

ঘোর-বিপদে-সবাই-মুখ-ফিরিয়ে-নিলেও-মহান-আল্লাহপাক-ফিরিয়ে-নেননা ইসলাম সকল খবর »

এক্সক্লুসিভ নিউজ


যে কারণে টয়লেটের ফ্ল্যাশে রয়েছে '২ বাটন'

যে-কারণে-টয়লেটের-ফ্ল্যাশে-রয়েছে--২-বাটন-

ক্যান্সারের মতো রোগকেও প্রতিরোধ করে সফেদা

ক্যান্সারের-মতো-রোগকেও-প্রতিরোধ-করে-সফেদা

জেনে নিন, কালো জামের কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতা

জেনে-নিন-কালো-জামের-কিছু-স্বাস্থ্য-উপকারিতা এক্সক্লুসিভ সকল খবর »

সর্বাধিক পঠিত


দুঃসময়ে বন্ধু মাশরাফির পাশে দাঁড়ালেন আশরাফুল

আইসিসি থেকে বড় দুঃসংবাদ পেল বাংলাদেশ

যেভাবে বুঝবেন আপনার শরীরে ক্যালসিয়ামের অভাব, যা খেতে হবে

পাকিস্তানের এই বশির চাচাকে আট বছর যাবত ফ্রি ম্যাচ টিকেট দেন ধোনি!

পাঠকই লেখক


নাড়ীর নীড়ে

নাড়ীর-নীড়ে

বিলাসবহুল বিএমডব্লিউ গাড়ির তেল কিনতে রাতের আধাঁরে হাঁস-মুরগি চুরি!

বিলাসবহুল-বিএমডব্লিউ-গাড়ির-তেল-কিনতে-রাতের-আধাঁরে-হাঁস-মুরগি-চুরি-

ভারত ক্রিকেটের ‘আসল প্রতিপক্ষ’ বাংলাদেশ!

ভারত-ক্রিকেটের-‘আসল-প্রতিপক্ষ’-বাংলাদেশ- পাঠকই সকল খবর »

জেলার খবর


ঢাকা ফরিদপুর
গাজীপুর গোপালগঞ্জ
জামালপুর কিশোরগঞ্জ
মাদারীপুর মানিকগঞ্জ
মুন্সিগঞ্জ ময়মনসিংহ
নারায়ণগঞ্জ নরসিংদী
নেত্রকোনা রাজবাড়ী
শরীয়তপুর শেরপুর
টাঙ্গাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া
কুমিল্লা চাঁদপুর
লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী
ফেনী চট্টগ্রাম
খাগড়াছড়ি রাঙ্গামাটি
বান্দরবান কক্সবাজার
বরগুনা বরিশাল
ভোলা ঝালকাঠি
পটুয়াখালী পিরোজপুর
বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গা
যশোর ঝিনাইদহ
খুলনা মেহেরপুর
নড়াইল নওগাঁ
নাটোর গাইবান্ধা
রংপুর সিলেট
মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ
নীলফামারী দিনাজপুর
কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট
পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ
সুনামগঞ্জ কুষ্টিয়া
মাগুরা সাতক্ষীরা
বগুড়া জয়পুরহাট
চাঁপাই নবাবগঞ্জ পাবনা
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ